banglanewspaper

গত মে থেকে লাদাখের ভারত-চীনের মধ্যে সীমান্ত নিয়ে বিভাজন বেড়েছে। এর মধ্যে কয়েকদফা সংঘর্ষও হয়েছে। নিয়ন্ত্রণ রেখায় দুই দেশের মধ্যে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এই অবস্থায়ই উপগ্রহ চিত্রে লাদাখের ডোকলামে নতুন করে ব্যাপক চীনা তৎপরতার দৃশ্য ধরা পড়েছে।

গত জুলাইয়ে দুই পক্ষের সেনারা কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়ানোর আগে থেকেই সেখানে চীন যে নানামুখী তৎপরতা শুরু করেছিল এর আগেও কিছু উপগ্রহ চিত্রে তা ধরা পড়েছিল। লাদাখের ডোকলাম মালভূমির কাছে ভূটানের জমিতে চীনা সেনাদের গ্রাম তৈরির খবর জানা গিয়েছিল আগেই। এ বার উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়ল ওই গ্রামে চীনের তৈরি করা রাস্তার ছবিও।

এনডিটিভি ও কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার বিশেষজ্ঞদের বরাতে জানাচ্ছে, ওই রাস্তার অভিমুখ ভারতীয় সীমান্তের দিকেই। ফলে তিন বছর আগে ‘ঘুমিয়ে পড়া’ ডোকলাম ইস্যু ফের ভাবিয়ে তুলেছে দিল্লিকে। ২০১৭ সালে ওই শৈলশিরা দখল করতেই ভারত বাধা দিয়েছিল ভারত। ভৌগোলিক দিক থেকে ওই শৈলশিরা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। 

কারণ ওই এলাকার দখল রাখতে পারলে শিলিগুড়ি করিডোর বা ‘চিকেনস নেক’ এর ওপর সহজেই নজরদারি চালানো যাবে। তিন বছর আগে ডোকলাম মালভূমির যে অঞ্চলে দুই দেশ সংঘাতে জড়িয়ে পড়েছিল, সেখান থেকে ১০ কিলোমিটার দূরত্বের মধ্যে তোরসা নদীর তীর বরাবর তৈরি হয়েছে নতুন এই রাস্তা।

চিনের রাষ্ট্রায়ত্ত টিভি সিজিটিএন এর সিনিয়র প্রযোজক শেন শিওয়েই গত বৃহস্পতিবার ভুটান সীমান্তের মধ্যে তাদের গ্রামটির বেশ কিছু ছবি টুইট করার পর এ নিয়ে ভারতেও তোলপাড় শুরু হয়েছে। ছবি টুইট করে শেন লেখেন, ‘নতুন পাংদা গ্রামে এখন আমাদের স্থায়ী বাসিন্দারা রয়েছেন। ইয়াদং কাউন্টির ৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণে উপত্যকা বরাবর এই গ্রামের। মানচিত্রে তার অবস্থানটা ভালো বোঝা যাবে।’

ওই টুইটার পোস্টে মানচিত্রের ছবি দিয়ে গ্রামটির অবস্থানও চিহ্নিত করে দিয়েছিলেন তিনি। যদিও পরে সেই পোস্ট মুছে ফেলা হয়। ওই টুইটার পোস্টের পর পরেই প্রকাশ্যে আসলো উপগ্রহ থেকে তোলা ওই এলাকার ছবি।

ট্যাগ: bdnewshour24