banglanewspaper

করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) কারণে বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক বাড়ছে। করোনার বিস্তার রোধে বিভিন্ন স্বাস্থ্য গাইড দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। হাত ধোয়া, মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব মানতেও বলা হয়েছে। কোথায় কোথায় করোনা ভাইরাস লুকিয়ে থাকতে পারে। কিভাবে ছড়ায় সে বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়ানো হয়েছে।

মানুষ ছাড়াও কয়েকটি প্রাণীর দেহে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে। এবার আইসক্রিমে ভাইরাসটির অস্তিত্ব পাওয়া গেল। এমন অবাক করা কাণ্ড ঘটেছে চীনে।  

বার্তা সংস্থা এপি জানায়, উত্তর চীনে পরপর তিনটি আইসক্রিমে করোনা শনাক্ত হয়েছে। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

বেইজিং সংলগ্ন পৌরসভা তিয়ানজিনের ডাকাইওয়াডা ফুড কোম্পানির লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠারের তৈরি ওই আইসক্রিম। ইতোমধ্যে প্রতিষ্ঠানটি কন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ওই কোম্পানির ১ হাজর ৬০০ কর্মীকে পাঠানো হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে।

দেশটির কর্তৃপক্ষ জানায়, সম্প্রতি ৪ হাজার ৮৩৬ বাক্স আইসক্রিম প্রস্তুত করে প্রতিষ্ঠানটি। এরমধ্যে অর্ধেকের বেশি আইসক্রিম গোডাউন থেকে বের হয়ে যায়। বাকি ২ হাজার ৮৯ আইসক্রিম সিল করে দেওয় হয়েছে।

৯৩৫ বক্স আইসক্রিম বাজারে চলে যায়। তবে বিক্রি হয়েছে ৬৫টি । সেগুলোর মধ্যে তিনটি আইসক্রিম করোনা শনাক্ত হয়। এরপর বাজার থেকে বাকি আইসক্রিম তুলে নেওয়া হচ্ছে এবং বিক্রি হওয়া আইসক্রিমগুলো কারা কিনেছে তাদের শনাক্ত করছে কর্তৃপক্ষ। 

মানবদেহ ছাড়া আর কোথায় থাকতে পারে কিনা তার অনুসন্ধান শুরু করে চীনা প্রশাসন। সে কারণে স্থানীয় বাজার থেকে বিভিন্ন সামগ্রী সংগ্রহ করে পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়। সেখানেই আইসক্রিমের মধ্যে ধরা পড়ে করোনা।

ইউক্রেন এবং নিউজিল্যান্ড থেকে আনা কাঁচামাল দিয়ে তৈরি হয় আইসক্রিমগুলো। এই কাঁচামাল আমদারি করার সময় তাতে ভাইরাস লুকিয়ে ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ট্যাগ: bdnewshour24