banglanewspaper

করোনাভাইরাসকে (কোভিড-১৯) ট্রাম্প ও হোয়াইট হাউসের অনেক কর্মকর্তা স্রেফ ‘ধাপ্পাবাজি’ বলেই বিশ্বাস করতেন। তারা এ ব্যাপারে ছিলেন উদাসীন এবং বলতেন, এসব প্রতারণা। হোয়াইট হাউসের জাতীয় টাস্কফোর্সের সদস্য ডা. ডেব্রাহ বার্কস করোনা নিয়ে প্রেসিডেন্ট থাকাকালে ডোনাল্ড ট্রাম্পের গোপন কিছু কর্মকাণ্ড ফাঁস করে দিয়ে একথা বলেছেন।

স্থানীয় সময় রবিবার সিবিএস নিউজের ‘ফেস দ্য নেশন’ অনুষ্ঠানে মার্গারেট ব্রেনানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বার্কস বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছিলেন, ব্লিচ দিয়ে ফুসফুস পরিষ্কার করলে করোনা চলে যেতে পারে। সে সময় পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বার্কস মুখভঙ্গি করে জানিয়েছিলেন, করোনা নিয়ে ট্রাম্প মার্কিনদের সঙ্গে উপহাস করছেন। ট্রাম্পের সময়ে অনেকবার চাকরি ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন বলেও জানান বার্কস।

করোনাভাইরাস মহামারির সময়ে হোয়াইট হাউসের জাতীয় টাস্কফোর্স নিয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যেসব তথ্য ও গ্রাফ দেখিয়েছেন, তা কোনো স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের করা ছিল না বলেও জানান বার্কস। এমনকি হোয়াইট হাউসের ভেতর থেকে নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী তথ্যপত্র প্রস্তুত করে সংবাদ সম্মেলনে সরবরাহ করা হতো, বলেছেন বার্কস।

সেন্টার ফর ডিসিজ কন্ট্রোলের সেন্টার ফর গ্লোবাল হেলথের বিশেষ উপদেষ্টা হিসেবে কর্মরত বার্কস আরও বলেন, তিনি মনে করেন, ট্রাম্পের বক্তব্য করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সহায়ক হয়নি। প্রেসিডেন্টের আচরণ ও দায়িত্বহীন কথাবার্তা যুক্তরাষ্ট্রের চার লাখ মানুষের মৃত্যুকে ত্বরান্বিত করেছে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ও জাতীয় টাস্কফোর্সের অন্যতম প্রভাবশালী সদস্য অ্যান্থনি ফাউচিও মহামারি নিয়ে কথা বলার সময় ট্রাম্প প্রশাসন কীভাবে বাধা দিয়েছিল, সে অভিজ্ঞতা জানিয়েছিলেন।

করোনায় সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। ট্রাম্প অবশ্য এ ঘটনায় ব্যর্থতার দায় নেননি। উল্টো দাবি করেছেন, টিকা আবিষ্কারের প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত হওয়ায় তিনি স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

ট্যাগ: bdnewshour24