banglanewspaper

সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা পাচার ও লোপাটের অভিযোগে বিদেশে পালিয়ে থাকা এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পিকে হালদারের দুই সহযোগীর ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। 

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ ইমরুল কায়েশ এ রিমান্ডের আদেশ দেন। এর আগে সোমবার দুপুর পৌনে ৩টার দিকে আসামিদের আদালতে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদক ‍উপ-পরিচালক মো. সালাহউদ্দিন।

রিমান্ডপ্রাপ্তরা হলেন- পিপলস লিজিংয়ের (পিএলএফএসএল) চেয়ারম্যান উজ্জ্বল কুমার নন্দী ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচারক (এমডি) রাশেদুল হক।  

এর আগে গতকাল রবিবার বিকেলে রাজধানীর সেগুনবাগিচা এলাকা থেকে দুদকের উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান পি কে হালদারের ওই দু্ই সহযোগীকে গ্রেফতার করেন।

২০১০ সাল পর্যন্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইআইডিএফসির কোম্পানি সচিব ছিলেন উজ্জ্বল কুমার নন্দী। এরপর ২০১৩ সালের অক্টোবরে তাকে এফএএস ফিন্যান্সের পরিচালক করেন পি কে হালদার। পরে তাকে আনন কেমিক্যাল ও পিপলস লিজিংয়ের চেয়ারম্যান করা হয়। একই সঙ্গে নন্দীকে নর্দান জুট, রহমান কেমিক্যাল ও ক্লিউইস্টন ফুডের চেয়ারম্যানের পদ দেন পি কে হালদার। 

অন্যদিকে, রাশেদুল হক মূলত পি কে হালদারের ডান হাত হিসেবে পরিচিত। ২০১০ সালে পি কে হালদার যখন রিলায়েন্স ফাইন্যান্সের এমডি ছিলেন, তখন রাশেদুল হক ওই প্রতিষ্ঠানের ডিএমডি ছিলেন। এরপর ২০১৫ সালে রাশেদুল হক ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের এমডি পদে যোগ দেন। এই পদে থাকাবস্থায় তিনি যাচাই-বাছাই ছাড়াই প্রায় ৪০টি প্রতিষ্ঠানকে আড়াই হাজার কোটি টাকা ঋণ দিয়েছিলেন, যেগুলোর বেশির ভাগ ক্ষেত্রে কোনও মর্টগেজ ছিল না। 

রিমান্ডপ্রাপ্ত আসামিরা গ্রেফতারের পরই দুদক তাদের ও পি কে হালদারসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে ৭০ কোটি ৮২ লাখ টাকা আত্মসাৎ ও অর্থপাচারের অভিযোগে মামলা করে। 

রিলায়েন্স ফিন্যান্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক থাকাবস্থায় আত্মীয়স্বজনদের দিয়ে সারা দেশে ৩৯টি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলের পিকে হালদার। এসব প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হিসেবে থাকা ৮৩ জনের ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে তিনি ও তার সহযোগীরা সাধারণ আমানতকারীদের কাছ থেকে কৌশলে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেন। এরমধ্যে আইএলএফএসএল থেকে দেড় হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে পিকে হালদারের বিরুদ্ধে। এসব অর্থ নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যান তিনি। 

এরইমধ্যে ৩৬০০ কোটি টাকা নিয়ে পালানো পিকে হালদার দেশে ফিরতে চান মর্মে গেল বছরের ৭ সেপ্টেম্বর বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক হাইকোর্ট বেঞ্চে আবেদন করেন পিকে হালদারের আইনজীবী। 

এদিকে গত ৫ জানুয়ারি পিকে হালদারের মা’সহ ২৫ জনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন হাইকোর্ট। পিকে হালদারকে ধরতে পুলিশের আন্তর্জাতিক সংস্থা ইন্টারপোলে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ, একইদিন আদালতকে এ তথ্য জানিয়েছে পুলিশ সদর দফতর।

ট্যাগ: bdnewshour24