banglanewspaper

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচার চললে তা আইনসভার বিভিন্ন কাজ ও মন্ত্রিসভার নিয়োগে বিলম্ব ঘটাবে বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। 

মার্কিন সংবাদমাধ্যম বিএনএন’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন এ কথা জানিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেয়ার পর গণমাধ্যমকে এই প্রথম সাক্ষাৎকার দিলেন বাইডেন।

নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ওই সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘ট্রাম্প যদি ৬ মাস পর বিদায় নিতেন তাহলে বিচারের ফলটা ভিন্ন হতো। তবে এ বিচার না হলে তা আরও বেশি খারাপ নজির স্থাপন করবে।’

ট্রাম্পকে দোষী প্রমাণিত করতে অন্তত ১৭ জন রিপাবলিকান সিনেটরের সমর্থন লাগবে। বাইডেন মনে করেন না, রিপাবলিকান সিনেটররা এ ভোট দেবেন। 

ইতোমধ্যে আলোচনা চলছে, সিনেটে ডেমোক্র্যাটরা মাত্র একটি আসনে সংখ্যাগরিষ্ঠ। প্রতিনিধি পরিষদে ১০ জন রিপাবলিকান ট্রাম্পের অভিশংসনের পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন। তবে তারা এখন দলের মধ্যে প্রশ্নের মুখে পড়েছেন। 

সিনেট ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচারে যথাযথ পদক্ষেপই নেবে। আবার অন্য কাজগুলোও সঠিক সময়ের মধ্যে সম্পাদন করা হবে- এমনটিই আশা করছেন বাইডেন। 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিধসে ট্রাম্প অভিশংসিত হওয়ার আর্টিকেল গত সোমবার সিনেটে পাঠানো হয়েছে। বিচারে প্রতিকিউটরদের দায়িত্ব পালন করবেন এমন ৯ জন ডেমোক্র্যাট সিনেটে আর্টিকেলটি নিয়ে যান। 

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট ভবন ক্যাপিটল হিলে হামলায় উস্কানি দেয়ার অভিযোগে প্রতিনিধি পরিষদে ট্রাম্পকে অভিশংসিত করা হয়। এর আগেও তিনি প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হয়েছিলেন। সেবার সিনেটের কল্যাণে তিনি রক্ষা পান। এবারও তেমনটিই হতে পারে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের।

ট্যাগ: bdnewshour24