banglanewspaper

রাজধানীর ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস অব বাংলাদেশের (ইউল্যাব) শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ও মৃত্যুর ঘটনায় মামলায় ৫ দিন পর নেহা নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নেহা নিহত ওই শিক্ষার্থীর বান্ধবী। গ্রেফতার নেহা ঘটনার দিন উত্তরার ব্যাম্বু সুটে'র রেস্টুরেন্টে একসঙ্গে মদপান করেছিল এবং এই কয়েকদিন সে পলাতক থাকে। 

পুলিশ বলছে, নেহাকে গ্রেফতারে এবার ঘটনার অনেক রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে। 

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১ টার সময় তেজগাঁও বিভাগের ডিসি হারুন অর রশীদ এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানাবেন। 

জানা যায়, গত ২৮ জানুয়ারি বিকালে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ইউল্যাবের ওই নারী শিক্ষার্থী তার বয়ফ্রেন্ড মর্তুজা রায়হান চৌধুরীসহ পাঁচজন উত্তরার 'ব্যাম্বু সুট’ রেস্টুরেন্টে যায় এবং মদপান করে। এসময় নেহা নামে তাদের এক বান্ধবী মদপানে অসুস্থ হয়ে পরলে সে (নেহা) ও তার বন্ধুকে উবারে তুলে দেওয়া হয়। রেস্টুরেন্টে অবস্থানের সময় ইউল্যাবের ওই নারী শিক্ষার্থীও অসুস্থতা বোধ করে। পরে তাকে নিয়ে আসা হয় তাফসির নামে মোহাম্মদপুর এলাকায় তাদের এক বন্ধুর বাসায়। যেটি ছিল মোহাম্মাদীয়া হোমস লিমিটেডের তিনতলার একটি ফ্ল্যাটে। 

পরের দিন (২৯ ডিসেম্বর) ওই বন্ধুর বাসায় থাকাকালে ইউল্যাব শিক্ষার্থীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে তার বয়ফ্রেন্ড মর্তুজা রায়হান। এতে সে আরো অসুস্থতা বোধ করলে গভীর রাতে তাকে প্রথমে নেওয়া কল্যাণপুরের ইবনে সিনা হাসপাতালে। 

সেখানে লাইফ সার্পোটের ব্যবস্থা না থাকায় নেওয়া হয় ধানমন্ডির আনোয়ার খান মডার্ণ হাসপাতালে। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার দুপুরে মৃত্যু হয় ইউল্যাবের ওই নারী শিক্ষার্থীর।

ট্যাগ: bdnewshour24