banglanewspaper

নেপালে সার রফতানিতে বাংলাদেশকে ট্রানজিট দিচ্ছে ভারত। ভারতের রহনপুর-সিঙ্গাবাদ রেলপথ দিয়ে চালানটি নেপালে প্রবেশের কথা রয়েছে। বাংলাদেশ-ভারত-নেপাল সংযুক্তি (পিবিআইএন) সংযোগ এবং উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতার ভিত্তিতে এ ট্রানজিট দেয়া হচ্ছে। 

জানা গেছে, বাংলাদেশ থেকে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ আমদানিকৃত সার প্রতি বছর নেপালে পাঠানো হচ্ছে। এ বছর ৩ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ রেলওয়ে নেপাল রফতানি সার বোঝাই প্রথম ট্রেনটি ভারতীয় রেলওয়ের নিকট হস্তান্তর করে। বর্তমানে রেলওয়ে ট্রানজিট ব্যবহার করে প্রায় ২৭ হাজার মেট্রিক টন সার নেপালে রফতানি করা হবে। 

এছাড়া পরবর্তীতে আরও ২৫ হাজার মেট্রিক টন সার নেপালে রফতানির পরিকল্পনা রয়েছে। এই পদক্ষেপগুলো আঞ্চলিক সহযোগিতা জোরদার এবং সংশ্লিষ্ট দেশগুলো অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে। 

উল্লেখ্য, ১৯৭৬ সালে বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে স্বাক্ষরিত একটি চুক্তির অধীনে বাংলাদেশ থেকে নেপালে পণ্য রফতানি করা হয়। এছাড়া অন্য দেশে থেকে নেপালের আমদানি পণ্যসমূহ ভারতীয় অঞ্চলের মধ্য দিয়ে ট্রাফিক ইন ট্রানজিট হিসেবে পরিবহণ করা হয়। 

নেপালের সাথে রফতানি ও স্থল বাণিজ্যের জন্য ভারত বিশেষভাবে বাংলাদেশকে ট্রানজিট সুবিধা সরবরাহ করে আসছে। রেলপথে ট্রাফিক ইন ট্রানজিট মূলত ভারত-বাংলাদেশ ক্রসিং পয়েন্ট, রহনপুর (বাংলাদেশ)- সিঙ্গাবাদ (ভারত) এবং বিরল (বাংলাদেশ)- রাধিকাপুর (ভারত) রেলপথে পরিবহণ করা হয়। 

ট্যাগ: bdnewshour24