banglanewspaper

কুকুরকে বলা হয় প্রভুভক্ত প্রাণী। পোষা প্রাণীদের মধ্যে গ্রাম-গঞ্জে, দেশ-বিদেশে অনেকেই শখ করে কুকুর পালন করেন। অনেকেই তো চলার পথেও কুকুরকে নিত্যসঙ্গী করেন। কেউ কেউ আবার বিছানায় পোষা কুকুরটিকে জড়িয়ে ধরেও ঘুমান। পোষা কুকুর নিয়ে এরকম বিচিত্র অভিজ্ঞতার শেষ নেই। 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন থেকে শুরু করে বার্সেলোনা তারকা লিওনেল মেসির দিকে তাকালেই বোঝা যায়, পোষা কুকুরের প্রতি তাঁদের কতটা দরদ।

কিন্তু ২২১ বার ডেটিংয়ে গিয়েও লাস্যময়ী কোনও মডেল যখন পছন্দের জীবনসঙ্গী খুলে না পান, তখন তো তাকে বিকল্প পথই খুঁজে নিতে হয়। ব্রিটিশ মডেল ও সাঁতারু এলিজাবেথ হোড এবার সেই পথটিই খুঁজে নিলেন। চারবার বিয়ে ভাঙার পর এবার কুকুরকেই জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নিলেন তিনি। বিয়েও করেছেন নিজের কুকুরকেই। সূত্র- মিরর অনলাইন
 

গেল ৫ বছরের বেশি সময় ধরে কুকুরটিকে লালন পালন করছিলেন হোড। শখ করে কুকুরটির নাম রেখেছেন লোগান। সেই লোগানই এখন আশির দশকে লাখো পুরুষের হৃদয়ে ঝড় তোলা মডেল এলিজাবেথের জীবনসঙ্গী। মূলত পুরুষের প্রতি ‘অনাস্থা’ থেকেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ৪৯ বছর বয়সী এ মডেল। 

তবে কাজটি তিনি গোপনে নয়, বরং ঢাকঢোল পিছিয়ে গণমাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করেই কুকুরের সঙ্গে জীবন বেঁধেছেন। বিরল এ ঘটনা এখন নেট দুনিয়ায় ভাইরাল।

বিয়ের পোশাকে স্বামী-স্ত্রীকে একসঙ্গে দেখে বিস্ময়ে বিমূঢ় ছিলেন অনুষ্ঠানে আসা হাজারো দর্শক। বিয়ের পর তারা পরস্পরকে আলিঙ্গন করে চুমু খান। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নবদম্পতির গভীর চুম্বনের দৃশ্যও ভাইরাল হয়েছে। 

এ ব্যতিক্রমী বিয়েতে এলিজাবেথ প্রশংসা যেমন কুড়িয়েছেন, আবার অনেকেই তীব্র সমালোচনা করতেও ছাড়েননি।

লোগান মূলত গোল্ডেন রিট্রিভার প্রজাতির কুকুর। প্রেমিকদের মুখ ফিরিয়ে নেয়ার দিনগুলোতে এই লোগানই এলিজাবেথের পাশে ছিলেন। বেশ কয়েকবার তাকে দুর্ঘটনার হাত থেকেই রক্ষা করেছেন।

তাইতো লোগানকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বরণ করার পর এলিজাবেথ বলেন, ‘সে (লোগান) আমার মন ভালো রাখতো। কষ্টের সময় সান্ত্বনাও দিয়েছে। জীবনসঙ্গীর কাছে এরচেয়ে বেশি কিছু আমি আশা করি না।’

তাই স্ত্রী হিসেবে স্বামী লোগানকে সবসময় ভালোবাসা দিয়ে আগলে রাখতে চান এই মডেল।

ট্যাগ: bdnewshour24