banglanewspaper

ভাগ্য পরিবর্তন হয়ে যাবে জ্যোতিষীর আংটি পরলে। কারণ জ্যোতিষী ভবিষ্যত বলতে পারেন এবং মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করতে পারেন। এ সব বিশ্বাস করে ভুক্তেভোগীরা উচ্চমূল্যে আংটি ক্রয় করে। কাজ না হলে আবারও নতুন করে আংটি কেনার পরামর্শ। সেটিতেও কাজ না হলে একটা পর্যায়ে বুঝতে পারেন, প্রতারণার শিকার হয়েছেন তারা। ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকেন প্রতারক জ্যোতিষী।

তবে এবার এক ভুক্তভোগী হাসান কবির নামে এক জ্যোতিষীর প্রতারণার শিকার হয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের কাছে প্রতিকার চেয়ে অভিযোগ করেন। ওই ভুক্তভোগীর নাম মোহাম্মদ আনাম। তার বাসা রাজধানীর ভাটারা এলাকায়।

তিনি অভিযোগে উল্লেখ করেন, গত ১৬ ফেব্রুয়ারি রুম্মানা নামে এক নারীর মাধ্যমে হাসান কবির নামে এক জ্যোতিষীর কাছে যাই। তিনি ভবিষ্যত বলতে পারেন ও মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করতে পারেন বলে দাবি করেন। ভুক্তভোগী তাকে সমস্যার কথা খুলে বললে জ্যোতিষী একটি আংটির মাধ্যমে সেই সমস্যার সমাধান করা যাবে বলে বিভিন্ন আধ্যাত্মিক ব্যাখ্যা দেন। মূল্যবান পাথরের তৈরি বলে এক লাখ ২০ হাজার টাকা দাবি করেন। একপর্যায়ে উপায়ান্তর না পেয়ে ওই টাকা দিয়ে আংটি গ্রহণ করেন তিনি। হাসান কবির আশ্বস্ত করেন সাতদিনে এর ফল পাবেন। [ads]

সাতদিন পর কাজ না হলে তার কাছে গেলে তিনি বলেন, রাশিগত সমস্যার কারণে কোনো কাজ হয়নি। এরপর দুবাই থেকে সংগ্রহ করা সাদা টোপাজ পাথর নেওয়ার কথা বলে। যার মূল্য এক লাখ ৫০ হাজার টাকা। এই সাদা টোপাজ পাথরের আংটি এখন না পড়লে যাবতীয় শারীরিক ও মানসিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে। সততা যাচাইয়ের কথা বললে তিনি বেশ ক্ষুব্ধ হন এবং নানারকম ভূত ও ভবিষ্যত মন্তব্য করেন যা ছিল মিথ্যা। 

তবে জ্যোতিষী সেগুলো সত্য বলে চাপানোর চেষ্টা করেন। এমনকি ভুক্তভোগীর এক বিচারপতি আত্মীয়ের কথা বলেন। ওই বিচারপতি নাকি তার কাছ থেকে আংটি নিয়ে উপকৃত হয়েছেন বলে দাবি করেন জ্যোতিষী। এমনকি ওই বিচারপতির পরিবার সম্পর্কে ভুল কিছু তথ্য দেন যা ছিল সম্পূর্ণ বানোয়াট ও মিথ্যা। সেই মিথ্যার কারণে হাসান কবিরের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট হয়। এরপর হাসান কবির সম্পর্কে জানতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গেলে বিভিন্ন সমাজবিরোধী ও উস্কানিমূলক পোস্ট পাওয়া যায়। এছাড়া বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার তথ্যও ভুক্তভোগী জানতে পারেন বিভিন্ন মাধ্যমে।

হাসান কবির নামে ওই প্রতারকের কাছে যেন তার মত আর কোনো সাধারণ মানুষ যেন প্রতারণার শিকার না হন সে জন্য পুলিশকে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করেছেন ভুক্তভোগী আনাম। [ads]

প্রতারণার বিষয়ে জানতে চাইলে জ্যোতিষী হাসান কবির বলেন, আমার বিরুদ্ধে কে/আপনার কোথায় অভিযোগ করেছেন।

বিষয়টি অবগত করা হলে তিনি বলেন, এসব মিথ্যা অভিযোগ। আমি ফেব্রুয়ারি নয় গত পাঁচবছর হয়েছে এই পেশা ছেড়ে দিয়েছি। এরপর তিনি ফোন কেটে দেন। [ads]

হাসান কবিরের ফেসবুক আইডিতে গত ৪ মে একটি পোস্টে দেখা যায়, ২০২১ সালে তৃণমুল কংগ্রেস থেকে আমার মাত্র ২ জন সম্মানিত ক্লায়েন্ট ব্যক্তিগত কারণে নির্বাচনে জয়লাভ করতে পারেননি। এতদভিন্ন শতকরা ৯৪ ভাগ তৃণমুল কংগ্রেস প্রার্থী যাহারা আমার নিকট থেকে নির্বাচনে জয় লাভ করার জন্য জ্যোতিষতন্ত্র এবং অন্যান্য ইসলামিক শান্তিকর্ম করিয়ে প্রতিকার গ্রহণ করেছেন। প্রত্যেককে আমার অভিনন্দন ও দোয়া রইল। দিল্লির মসনদে আসীন হোতে ইচ্ছুক হলে যোগাযোগ করতে পারেন থেকেই। ইনশাআল্লাহ দিল্লী বিজয় করিয়ে দেব। [ads]

গত বছরের ২০ জুলাই তার আরেকটি পোস্টে দেখা যায়, টক টু অ্যাস্ট্রোলজার হাসান কবির। জাস্ট ফর ১৬০ টাকা প্রতি মিনিট মোবাইলে। জ্যোতিষ, বাস্ত ও তন্ত্রশাস্ত্র নিয়ে বাংলা, হিন্দি ও ইংলিশে। যে কোনো সমস্যার বিজ্ঞানসম্মত সমাধানের জন্য। আপনি যেখানেই থাকুন না কেন শুধুমাত্র ফোনেই উত্তর পেয়ে যাবেন। সমস্যা যত জটিল ও কঠিনই হোক বিপদ যদি পর্বততুল্যও হয়, ব্যর্থতায় ব্যর্থতায় মহাসমুদ্রে নিমজ্জিত হয়ে থাকলেও সমাধান পেতে পারেন। সেখানে তিনি তার মোবাইল নম্বরটিও উল্লেখ করেছেন।
 

ট্যাগ: bdnewshour24