banglanewspaper

এক সময় ভারত উপমহাদেশে কুড়িগ্রামের চিলমারী বিখ্যাত ছিল বন্দরের জন্য। সেটি এখন ইতিহাস। সেই ইতিহাস আবার গড়ে তুলতে উদ্যোগী হয়েছে সরকার। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী চিলমারী বন্দর উজ্জীবনের সুরই যেন তুলেছেন। সভায় এ-সংক্রান্ত প্রকল্প নিয়ে আলোচনার সময় ছন্দতালে তিনি বলে ওঠেন, ‘হাঁকাও গাড়ি ভাই চিলমারী বন্দর’।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক সভায় এই দৃশ্য তৈরি হয় বলে তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘চিলমারী কিন্তু একসময় বিখ্যাত বন্দর ছিল। দেশভাগের পর আসামের সঙ্গে যোগাযোগে ছেদ পড়ায় এর গুরুত্ব কমে যায়। এখন যেহেতু আমরা প্রতিবেশী ভারতসহ আঞ্চলিক ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াচ্ছি, তাই চিলমারী বন্দরটা আবার আগের জায়গায় যাবে।’

মন্ত্রী বলেন, চিলমারী বন্দর নিয়ে এই আলোচনার সময় প্রধানমন্ত্রী গেয়ে ওঠেন, ‘হাঁকাও গাড়ি ভাই চিলমারী বন্দর।’

জানা গেছে, ২৩৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকার ‘চিলমারী এলাকায় নদীবন্দর নির্মাণ’ প্রকল্পটি ২০২১ সালের জুলাই থেকে ২০২৩ সালের ডিসেম্বর মেয়াদে বাস্তবায়নের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের।

ট্যাগ: bdnewshour24