banglanewspaper

বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের অন্যতম সফল ও জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূর। ক্যারিয়ারে তিনিই সবচেয়ে বেশি দর্শকপ্রিয় সিনেমা উপহার দিয়েছেন। আবার একাধিক নায়কের সঙ্গে সবচেয়ে ভালো জুটিও তার। সালমান শাহ থেকে শুরু করে রিয়াজ, ফেরদৌস কিংবা শাকিব খান- সবার সঙ্গেই ফিট শাবনূর। তার ঝুলিতে রয়েছে একটি জাতীয় পুরস্কার, ছয়টি বাচসাস পুরস্কার ও রেকর্ড ১০টি মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার।

অথচ এমন সফল একজন নায়িকা তার ক্যারিয়ারের শুরুতেই শুধুমাত্র হতাশার কারণে অভিনয় ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন। বহুদিন আগে বাংলাদেশ টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শাবনূর নিজেই এ কথা জানিয়েছিলেন। সম্প্রতি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে পুরোনো সেই সাক্ষাৎকারের ভিডিও শেয়ার করেছেন বহু হিট ছবির এই নায়িকা। সেখানে তাকে অকপটেই কথাগুলো বলতে শোনা যায়।


১৯৯৩ সালে প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক এহতেশাম পরিচালিত ‘চাঁদনী রাতে’ সিনেমাটি দিয়ে বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে শাবনূরের। তবে সেটি ফ্লপ হয়। ভালো ব্যবসা করতে পারেনি। বিটিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ঠিক এই বিষয়েই প্রশ্ন করেন উপস্থাপিকা। শাবনূরের কাছে তিনি জানতে চান, ‘প্রথম সিনেমা ‘চাঁদনী রাতে’ ফ্লপ হাওয়ার পরও খুব কম সময়ে কীভাবে একজন সফল ও প্রতিষ্ঠিত নায়িকা হয়ে উঠলেন?’

উত্তরে শাবনূর বলেন, ‘আমার প্রথম ছবিটা ফ্লপ হওয়ায় খুব ভেঙে পড়েছিলাম। ছবিটবি আর করবো না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। তখন দাদু (এহতেশাম) আমাকে উৎসাহ দিলেন। আমার বাবা-মাও বললেন, প্রথমটা খারাপ গেছে তাতে কী হয়েছে। পরবর্তী যে ছবিগুলো তুমি সাইন করেছ, সেগুলো রিলিজ হোক, দেখো। তারপর পরবর্তী সিনেমা ‘দুনিয়ার বাদশাহ’ রিলিজ হলো। তখন সেটা মোটামুটি হিট করলো এবং আমার উৎসাহটা একটু বাড়ল।’

শাবনূর জানান, ‘এরপর ‘তুমি আমার’ ও ‘সুজন সখি’সহ আরও বেশকিছু সিনেমা মুক্তি পেল। এগুলোর একটাও ফ্লপ হয়নি। মোটামুটি হিট হয়। আর সেখান থেকেই উৎসাহটা আমার আরও বেড়ে যায় এবং আমি তখন থেকেই সিনেমা চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। ’

সিনেমায় আসা প্রসঙ্গে শাবনূর ওই সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘ছোটবেলা অনেক নায়ক-নায়িকাদের দেখতাম পর্দায় গান করছেন, নাচ করছেন। তখন আমারও দেখে দেখে ইচ্ছা হলো, পর্দায় আমারও তাদের মতো হতে। কথায় কথায় আমার বাবা একদিন এহতেশাম দাদুকে (প্রয়াত পরিচালক এহতেশাম) বলেছিলেন, আমার মেয়ে চলচ্চিত্রে আসার ব্যাপারে আগ্রহী। উনি ছিলেন আমার বাবার বন্ধু। ওনারা একসঙ্গে মাছ মারতেন। দাদু বললেন, আপনার মেয়েকে একদিন নিয়ে আসেন। এরপর দাদু আমাকে প্রথম দেখেই বললেন, পেয়ে গেছি, তুমি আমার সিনেমার নায়িকা! সেদিন আমি একটা সবুজ শাড়ি পরেছিলাম।’

প্রসঙ্গত, শাবনূরের প্রকৃত নাম কাজী শারমিন নাহিদ নূপুর। তার উল্লেখযোগ্য কিছু চলচ্চিত্র হলো- ‘রঙিন সুজন সখী’, ‘স্বপ্নের ঠিকানা’, ‘স্বপ্নের পৃথিবী’ ও ‘তোমাকে চাই’, ‘আনন্দ অশ্রু’, ‘দুই নয়নের আলো’ ‘মন মানে না’, ‘তুমি শুধু তুমি’, ‘ভালোবাসি তোমাকে’, ‘বিয়ের ফুল’ ইত্যাদি। এই অভিনেত্রীর ক্যারিয়ারের অধিকাংশ সিনেমাই ব্যবসাসফল।

তবে গত কয়েক বছর ধরে অভিনয়ে একেবারেই অনিয়মিত শাবনূর। ২০১২ সালের ২৮ ডিসেম্বর তিনি অনিক মাহমুদকে বিয়ে করে সংসারী হন। স্বামীর সঙ্গে থাকতে শুরু করেন অস্ট্রেলিয়ায়। সেখানকার নাগরিকত্বও পান। বিয়ের পরের বছর ২৯ ডিসেম্বর নায়িকার কোলজুড়ে আসে ছেলে সন্তান আইজান নেহান। কিন্তু গত বছর অনিককে ডিভোর্স দেন শাবনূর। বর্তমানে ছেলেকে নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার তিনি একাই থাকেন।

ট্যাগ: bdnewshour24

বিনোদন
প্রেম ও প্রতারণায় শিরিন শিলা

banglanewspaper

সময়ের ব্যস্ত নায়িকা শিরিন শিলা। সম্প্রতি তিনি ‘ঘর ভাঙা সংসার’ নামে একটি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন। এটি পরিচালনা করেছেন মনতাজুর রহমান আকবর। সিনেমাটিতে শিলার বিপরীতে রয়েছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল।

মুক্তির অপেক্ষায় এই নায়িকার আরেক ছবি ‘নদীর জলে শাপলা ভাসে’। মেহেদি হাসান পরিচালিত এ ছবিতে শিলার বিপরীতে আছেন আনিসুর রহমান মিলন।

এরই মাঝে নতুন আরও এক ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেন শিরিন শিলা। নাম ‘ময়ূরাক্ষী’। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি হোটেলে ছবিটির ফার্স্টলুক প্রকাশ হয়। সেখানেই চুক্তি সই করেন শিলা। গোলাম রাব্বানীর চিত্রনাট্যে ছবিটি পরিচালনা করবেন রাশিদ পলাশ।

প্রেম ও প্রতারণা ‘ময়ূরাক্ষী’ ছবির গল্পের মূল বিষয়বস্তু। এখানে শিলা অভিনয় করবেন সুরভি চরিত্রে। ছবির কাহিনিতে দেখা যাবে, ফেসবুকে একটি ছেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে সুরভির। একসময় সেই ছেলেটি সুরভির সঙ্গে ভয়ংকর প্রতারণা করে।

শিলার বক্তব্য, চরিত্রটিতে ভালো কাজের সুযোগ আছে। এর আগে এমন চরিত্রে কাজ করিনি। এখানে আমাকে নতুন একটি লুকে দেখা যাবে। চরিত্রটিতে নিজেকে ভাঙার সুযোগ আছে, একজন অভিনেত্রী হিসেবে উপস্থাপনের সুযোগ আছে।’

শিলা আরও জানান, ১ ডিসেম্বর তিনি দেশের বাইরে যাবেন। ফিরে এসে এ ছবির জন্য গ্রুমিং শুরু করবেন। অন্যদিকে পরিচালক রাশিদ পলাশ জানিয়েছেন, জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝি থেকে ছবির শুটিং শুরু হবে। দুই ধাপে শুটিং শেষ হবে।

ট্যাগ:

বিনোদন
তনুশ্রীও কি শ্রাবন্তীর পথে হাঁটবেন?

banglanewspaper

কিছুদিন আগেই বিজেপি ছেড়েছেন টলিউড নায়িকা শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ইতোমধ্যে তিনি পশ্চিমবাংলার ক্ষমতাসীন দল তৃণমূলের পতাকা হাতে তুলে নিয়ে মমতা ব্যানার্জীর সঙ্গে কাজ করার ইচ্ছাপ্রকাশও করেছেন।

এদিকে শ্রাবন্তীর আগে বিজেপি ছেড়েছেন তার বন্ধু অভিনেত্রী তনুশ্রী চক্রবর্তী। যদিও তিনি এখনও অন্য কোনো দলে যোগ দেওয়ার ইচ্ছার কথা জানাননি। তবে বন্ধু শ্রাবন্তী যখন তৃণমূলে যেতে চাচ্ছেন, তনুশ্রীরও এমন কোনো ইচ্ছা আছে কিনা, মঙ্গলবার এক সংবাদমাধ্যমের লাইভ আড্ডায় এমন প্রশ্নই করা হয়েছিল।

ওই প্রশ্নের জবাবে তনুশ্রী স্পষ্ট জানান, ‘একসঙ্গে দুটি কাজ তখনই করতে পারব, যখন দুটি কাজেই সমান পারদর্শী হবো। রাজনীতিতে এসে বুঝলাম, অনেক কিছুই শেখা বাকি রয়ে গেছে। আমাকে আরও রাজনীতি শিখতে হবে। তাই কোনো দলেই যাব না। এখন সিনেমায় মন দেব।’

চলতি বছরের বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপিতে যোগ দেন তনুশ্রী। সে সময় তার বক্তব্য ছিল, ‘জনসেবা করতে চাই। তার জন্য রাজনৈতিক মঞ্চ দরকার। যে মঞ্চ আমাকে দ্রুত সাধারণের কাছে পৌঁছে দেবে।’

কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের পর থেকেই অন্য সুর শ্যামপুরের পরাজিত প্রার্থী তনুশ্রীর। তার এখনকার বক্তব্য, আপাতত তিনি রাজনীতি থেকে দূরেই থাকতে চান। আগামী ১০ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে এই নায়িকার নতুন ছবি ‘অন্তর্ধান’। এখানে তার বিপরীতে আছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়।

ট্যাগ:

বিনোদন
ভুয়া খবরে চটেছেন শ্রীলেখা

banglanewspaper

সেলেব্রিটিদের নিয়ে মুখোরোচক খবর নতুন কথা নয়। তাই বলে কোনো তারকা যে কথা বলেননি, তেমন মন্তব্য তার বলে চালিয়ে দেওয়াটা অনুচিতই শুধু নয়, তা আইনত অপরাধও বটে। এমনই এক ভুয়া নিউজের শিকার হলেন টলিউডের আলোচিত অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র।

এমনিতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভীষণ অ্যাক্টিভ শ্রীলেখা। স্পষ্টবক্তা হিসাবে পরিচিত তিনি। আলটপকা মন্তব্যের জেরে মাঝেমধ্যেই বিতর্কে জড়ান। কিন্তু এক নিউজ পোর্টাল শ্রীলেখাকে নিয়ে এমন এক কুরুচিকর প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, যার সঙ্গে তার কোনো যোগ নেই বলে দাবি অভিনেত্রীর।

শ্রীলেখা সেই খবরের লিঙ্ক শেয়ার করে লিখেছেন, ‘এরকম কথা কেউ কখনও বলতে পারে? বন্ধুগণ আমি কি নরখাদক হয়ে গেছি… আর পারি না এই সব পোর্টালগুলোকে নিয়ে। ওয়ার্নিং দিচ্ছি, যে বা যারা এই ধরণের পোস্ট করেছেন, শেয়ার করেছেন, কমেন্ট করেছেন সব নোট করা হচ্ছে এবং আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে যথাসময়ে। আমার থেকে সাবধানে থাকুন।’

অনুরাগীদের কাছে শ্রীলেখার আর্তি, ‘দয়া করে রিপোর্ট করুন এই পোস্টে।’ যদিও শুভাকাঙ্খীরা অভিনেত্রীকে চটজলদি আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার উপদেশ দিয়েছেন।

ট্যাগ:

বিনোদন
এবার রাধা-কৃষ্ণ হলেন অপু বিশ্বাস ও জয় চৌধুরী

banglanewspaper

এ প্রজন্মের চিত্রনায়ক জয় চৌধুরী ও অপু বিশ্বাস জুটির প্রথম ছবি 'প্রেম প্রীতির বন্ধন চলচ্চিত্রের প্রায় কাজ শেষের দিকে। সোলাইমান আলী লেবু পরিচালিত এ ছবিটি নতুন বছরের শুরুর দিকে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে।

সম্প্রতি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) বিরাট সেট ফেলে সিনেমাটির শেষ লটের শুটিং শুরু হয়েছে।

এই লটে চলচ্চিত্রটির টাইটেল গানের শুটিং করা হয়। টাইটেল গানের জন্য ‘পাগল মন’ গানটি রিমেক করা হয়েছে। এ গানে কণ্ঠ দিয়েছেন ইমরান ও লুইপা। নতুন করে মিউজিক আয়োজন করেছেন জাবেদ আহম্মেদ কিছলু।

গানের অংশের কোরিগ্রাফার করেছেন একে আজাদ। যেখানে রাধা-কৃষ্ণ রূপে দেখা গেছে অপু বিশ্বাস ও জয় চৌধুরীকে।

‘প্রেম প্রীতির বন্ধন’র একটি গানে অপু বিশ্বাস ও জয় চৌধুরীকে ঐতিহাসিক প্রেমিক যুগলের কয়েকটি রূপে দেখা যাবে। তার মধ্যে অন্যতম একটি হলো রাধা-কৃষ্ণ।

রাধা-কৃষ্ণের চরিত্র নিয়ে জয় চৌধুরী বলেন, 'প্রথম কোন চরিত্রকে ফুটিয়ে তুলতে আমার কষ্টটা একটু বেশিই হলো। যদিও এটি গানের একটি পার্ট ডিউরেশন ও ছিল মাত্র ১ মিনিটের মতো,কিন্তু ডেডিকেশন ছিল অনেক বেশি।

কারণ, কৃষ্ণ চরিত্রটার সঙ্গে আমি ঐ ভাবে পরিচিত ছিলাম না। রাধা বেশে অপু বিশ্বাস অনেক ভালো করেছে।'

জয় চৌধুরী ও অপু বিশ্বাস ছাড়াও সিনেমাটির বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করছেন মিশা সওদাগর, আমান রেজা, তাহমিনা মৌ, এল আর খান সীমান্ত, হারুন কিসিঞ্জার, হায়দার আলী, জাদু আজাদ প্রমুখ।

ট্যাগ:

বিনোদন
বিজেপি ছেড়ে আসা শ্রাবন্তী আপন হতে চান মমতার

banglanewspaper

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন শেষ না হতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দল বিজেপি ছেড়েছিলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। বিজেপির মোহ কাটিয়ে এবার বুঝি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দল তৃণমূলে যোগ দিয়ে ফেললেন। সোমবার বাসন্তী ব্লকের মসজিদবাটিতে তৃণমূলের দলীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেন টলিউড অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। সেখানেই শেষ নয়, সভামঞ্চ থেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ জানিয়ে নায়িকা বললেন, আমাকে আপন করে নিন।

এদিন বাসন্তীর এই সভায় ছিলেন ঘাসফুল শিবিরের পাঁচ বিধায়ক। শওকত মোল্লা, পরেশরাম দাস, সুব্রত মণ্ডলদের সামনেই শ্রাবন্তী জানান, ‘আমি বাংলার জন্য কাজ করতে চাই। বাংলারই মেয়ে আমি। মমতাদি’কে অনেক ধন্যবাদ। আপনাদের কাছে অনুরোধ, আমায় আপন করে নিন। আমি আপনাদের জন্যই কাজ করতে চাই’।

গত ১১ নভেম্বর ভারতীয় জনতা পার্টির সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করছিলেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। দু-সপ্তাহ পার হতে না হতেই তৃণমূলের সভামঞ্চে শ্রাবন্তী। তবে কি ফুলবদল করলেন নায়িকা? যোগ দিলেন তৃণমূলে এই প্রশ্নই এখন পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক মহলে।

এখানেই চমকের শেষ নয়, এদিন শ্রাবন্তীকে সভামঞ্চ দলীয় উত্তরীয় পরিয়ে দলের তরফে সম্মান জানানো হয়, ফলে স্পষ্ট বিজেপি ছাড়লেও রাজনীতির ময়দান থেকে সরতে নারাজ শ্রাবন্তী। বরং শিবির বদলে এবার মমতার ছত্রছায়ায় রাজনৈতিক কেরিয়ারকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চান।

শ্রাবন্তী আনুষ্ঠানিকভাবে তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন কি না তা এখনও স্পষ্ট নয়। সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি অভিনেত্রী। তবে বাসন্তীর বিধায়ক শ্যামল মণ্ডল জানান, ‘শ্রাবন্তী এখন তৃণমূলে, অন্য কোনো দলে নেই’। পুরো ঘটনায় তোলপাড় রাজ্য রাজনীতিতে। প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি পুরনির্বাচনের আগেই তৃণমূল শিবিরে আরও তারকা প্রাপ্তি?

চলতি বছর বিধানসভা নির্বাচনের আগে আচমকা কৈলাস বিজয়বর্গীয়, দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেন শ্রাবন্তী। কিন্তু ভোটের ফল বের হওয়ার পর দেখা যায়, বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্র থেকে তৃণমূল প্রার্থী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে ৫০ হাজারেরও বেশি ভোটে পরাজিত হয়েছেন ঘরের মেয়ে শ্রাবন্তী। তারপর থেকেই বিজেপির সঙ্গে আলগা হয় শ্রাবন্তীর সম্পর্ক। এরপর অগস্ট মাসে নায়িকার জন্মদিনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে শুভেচ্ছা চিঠি পাঠালে আপ্লুত হয়ে দিদির প্রতি ভালোবাসা জাহির করেন শ্রাবন্তী। তারপর থেকেই শুরু হয়েছিল অভিনেত্রীর তৃণমূলে যোগদানের জল্পনা, আর সেই জল্পনায় এদিন কার্যত সিলমোহর পড়ল।

ট্যাগ: