banglanewspaper

পবিত্র ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে ছোট-বড় মূল্যমানের ৩০ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট বাজারে ছাড়ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এছাড়া আগামীকাল বৃহস্পতিবার বাজারে আসছে নতুন মুদ্রিত দুই ও পাঁচ টাকা মূল্যমানের নোট।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কারেন্সি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আমাদের প্রস্তুতি বেশ ভালো আছে। এবার নতুন-পুরনো পর্যাপ্ত টাকা রয়েছে। ঈদের আগেই তফসিলি ব্যাংকের চাহিদা অনুযায়ী বাজারে ছাড়া হবে।’

বিশেষ ব্যবস্থায় এবার নতুন টাকা জনসাধারণের মাঝে বিতরণ করা হবে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা কোনো ঝুঁকিপূর্ণ সিদ্ধান্তে যাব না। বাংলাদেশ ব্যাংকের জন্য পুরো জাতি ক্ষতিগ্রস্ত হোক সেটা আমরা চাই না। তাই যা হবে ব্যাংকের মাধ্যমেই করা হবে।’

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত মুখপাত্র একেএম মহিউদ্দিন আজাদ বলেন, ‘আমরা পর্যাপ্ত পরিমাণ নতুন টাকা রেখেছি। করোনার কারণে জনসাধারণের মাঝে নতুন ও খুচরা টাকা বিনিময়ের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে না। তবে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে নিজস্ব ব্যাংক চেকের মাধ্যমে চাহিদা অনুযায়ী নতুন টাকা দেওয়া হচ্ছে।

মুখপাত্র বলেন, ‘গত বছরে প্রায় ২৪ হাজার কোটি টাকা ছাড়া হয়েছে। প্রতি বছরে দশ শতাংশ প্রবৃদ্ধি আলোকে এই কোরবানি ঈদে ৩০ হাজার কোটি টাকা ছাড়ার পরিকল্পা রয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল শাখা থেকে প্রায় নয় হাজার কোটি টাকার বেশি দিয়েছে। এছাড়া কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অন্যান্য শাখাগুলো নতুন টাকা বিতরণ করছে তার মোট হিসাব এখনো পাওয়া যায়নি। ঈদের আগে এখনও তিনদিন ব্যাংক খোলা থাকবে। আশা করছি ব্যাংকগুলো তাদের চাহিদা অনুযায়ী টাকা পাবে। তবে সরকারি দুই/পাঁচ টাকার নোট কিছুটা কমতি থাকলেও দশ থেকে একহাজার টাকার নোটের কমতি নেই।’

জানা গেছে, সারা বছর ৪০ থেকে ৫০ হাজার কোটি টাকার সমপরিমাণ বিভিন্ন মূল্যমানের নোট প্রয়োজন হয়। এর ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ প্রয়োজন হয় দুই ঈদে। তবে এবার করোনার সংকটের কারণে এবার নগদ টাকার চাহিদা বেশি হচ্ছে। ঈদের আগে ৩০ হাজার কোটি টাকার নতুন টাকা বাজারে এলে মূল্যস্ফীতির ওপর চাপ পড়বে কি না, জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের ওই কর্মকর্তা বলেন, সে রকম কোনো চাপ পড়বে না।

এদিকে আগামীকাল বৃহস্পতিবার বাজারে আসছে নতুন মুদ্রিত দুই ও পাঁচ টাকা মূল্যমানের নতুন নোট। বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল অফিস থেকে এই নোটগুলো ইস্যু করা হবে। পরবর্তী সময়ে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ ব্যাংকের অন্যান্য অফিস থেকে এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি সংবলিত দুই ও পাঁচ টাকা মূল্যমানের নতুন নোটে সিনিয়র অর্থসচিব আব্দুর রউফ তালুকদারের স্বাক্ষর রয়েছে। তবে নতুন মুদ্রিত নোটের পাশাপাশি বর্তমানে প্রচলিত দুই ও পাঁচ টাকা মূল্যমানের কাগুজে নোট ও ধাতব মুদ্রা চালু থাকবে। এসব নোটের রঙ, পরিমাপ, জলছাপ, ডিজাইন ও অন্যান্য নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য বর্তমানে প্রচলিত নোটের মতোই থাকবে।

ট্যাগ: bdnewshour24