banglanewspaper

চলতি মাসের শুরুর দিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে জানানো হয়েছিল, করোনা মহামারির মহামন্দার এই সময়েও ২০২০-২১ অর্থবছরে দেশে রেকর্ড পরিমাণ প্রবাসী আয় ও রফতানি আয় এসেছে। বিদায়ী অর্থবছরে দেশে প্রবাসী আয় এসেছে প্রায় ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ ডলার বা ২৫ বিলিয়ন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২ লাখ ১০ হাজার ৬১০ কোটি টাকার বেশি) ও একই সময়ে দেশে রফতানি আয় এসেছে প্রায় ৩৯ বিলিয়ন ডলার।

করোনা মহামারির মধ্যেও প্রবাসীরা রেমিট্যান্সের ধারা অব্যাহত রেখেছেন। পবিত্র ঈদুল আজহার আগে জুলাই মাসের প্রথম ১৫ দিনে দেশে ১২৬ কোটি ৪২ লাখ মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১০ হাজার ৭০০ কোটি টাকারও বেশি) পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। রেমিট্যান্স প্রবাহের এ ধারা অব্যাহত থাকলে মাস শেষে রেকর্ড পরিমাণ প্রবাসী আয় অর্জন করবে দেশ।

সোমবার (১৯ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি জুলাই মাসের প্রথম ১৫ দিনে সবচেয়ে বেশি প্রবাসী আয় এসেছে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে। ব্যাংকটির মাধ্যমে এসেছে ৩৮ কোটি  ৭৮ লাখ ডলার। এরপরই ডাচ-বাংলা ব্যাংক ১৬ কোটি ৯২ লাখ, অগ্রণী ব্যাংক ১৩ কোটি ৭৬ লাখ ও সোনালী ব্যাংক এনেছে ৭ কোটি ৬৪ লাখ ডলার।

এদিকে রেমিট্যান্সের প্রবাহ চাঙ্গা থাকায় করোনাকালেও ইতিবাচক ধারায় রয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। রফতানি আয় ও রেমিট্যান্সের কারণে বর্তমানে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪৬ দশমিক ৪২ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে বলেও জানা গেছে।

ট্যাগ: bdnewshour24