banglanewspaper

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুধু বেড়েই চলছে। এই অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য ব্যাপক হারে ভাইরাসটির প্রতিষেধক টিকা প্রয়োগের ওপর জোর দিচ্ছে সরকার। এর অংশ হিসেবে আগামী ৭ আগস্ট থেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে শুরু হচ্ছে টিকাদান কর্মসূচি। জাতীয় পরিচয়পত্র দেখিয়েই নেওয়া যাবে এই টিকা।

মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে করোনা নিয়ন্ত্রণে করণীয় ঠিক করতে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘আগামী ৭ আগস্ট থেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) দেখিয়ে করোনা প্রতিরোধক টিকা নেওয়া যাবে। এনআইডি নিয়ে গেলেই টিকা নেয়া যাবে। এর আগে দেশের ইউনিয়ন পর্যায়ে টিকা কেন্দ্র স্থাপনের কাজ সম্পন্ন করা হবে। যাদের এনআইডি নেই তাদেরও বিশেষ পদ্ধতিতে রেজিস্ট্রেশনের আওতায় এনে টিকা দেওয়া হবে। এ কাজের সঙ্গে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী এবং ধর্মীয় নেতাদের সম্পৃক্ত থাকতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ফ্রন্টলাইনারদের পরিবারের সদস্য, যাদের বয়স ১৮ বছর, তারা সবাই টিকার আওতায় আসবে। যাদের বয়স ৫০ এর বেশি তাদের সংক্রমণের হার ৭৫ শতাংশ; অথচ এদের মধ্যে টিকা নেননি ৯০ শতাংশ। ৫০ ঊর্ধ্ব সব নাগরিককে টিকার আওতায় আনতেই হবে।’

চলমান কঠোর বিধিনিষেধ আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্তই চলবে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘লকডাউন যাতে আরও কঠোর হয় সে বিষয়ে মাঠে কাজ করা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সবাইকে মাস্ক পরতেই হবে। স্বাস্থ্যবিধি মানতেই হবে।’

ট্যাগ: bdnewshour24