banglanewspaper

বলিউড অভিনেত্রী কৃতি শ্যাননের নতুন সিনেমা ‘মিমি’। ৩০ জুলাই মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল এই সিনেমা। কিন্তু প্রধান চরিত্র কৃতিকে চমকে দিতে গত ২৭ জুলাই নায়িকার ৩১তম জন্মদিনে মুক্তি দেওয়া হয় সিনেমাটি। জিও সিনেমা এবং নেটফ্লিক্সের পর্দায় মুক্তি পেয়েছে কৃতির ‘মিমি’।

নির্ধারিত সময়ের আগেই এই সিনেমা মুক্তির সিদ্ধান্ত কেন নিল কর্তৃপক্ষ? শুধুই কি কৃতির জন্মদিন, নাকি অন্য কারণও রয়েছে? ভারতীয় মিডিয়া সূত্রে খবর, সিনেমাটি অনলাইনে ফাঁস হয়ে যাওয়ার কারণেই আগে মুক্তির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।


‘মিমি’ সিনেমাটির জন্য কিছু কম কাঠখড় পোহাতে হয়নি হট এবং গ্ল্যামারাস কৃতি শ্যাননকে। রোগা ছিপছিপে শরীর ভুলে চরিত্রের প্রয়োজনে ১৫ কেজি ওজন বাড়াতে হয়েছে অভিনেত্রীকে। এই সিনেমায় সারোগেট মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন কৃতি। সে কারণেই ওজন বাড়াতে হয়েছিল অভিনেত্রীকে।

ছবির গল্পে দেখা যায়, এক বিদেশি কাপলের সন্তান চাই। কৃতির সৌন্দর্য মুগ্ধ করে তাদের। তাই ২০ লাখ টাকার বিনিময়ে সারোগেসির মাধ্যমে সন্তান চেয়েছিলেন ওই কাপল। বহু ডিলেমার পর শেষ পর্যন্ত রাজি হন কৃতি।

যদিও তার মনে প্রশ্নও থাকে প্রচুর। তার ফিগার নষ্ট হবে কিনা, বাড়ি সামলাবেন কীভাবে, সবকিছুর পর অবশেষে তিনি এই পদ্ধতির মধ্যে দিয়ে যান। মা হওয়ার প্রস্তুতিও নেন।

গল্পে টুইস্টও আছে। গল্পে দেখা যায়, মিমির বেবি বাম্প দেখা যেতে না যেতে হঠাৎই বেঁকে বসেন এই দম্পতি। বলেন, তাদের সন্তান চাই না। কৃতিকে গর্ভপাতের কথা বলেন পঙ্কজ ত্রিপাঠি। কৃতি পড়েন মহা বিপদে। ঘটনা বাড়িতেও জানাজানি হয়ে যায়। সব বাধা কাটিয়ে অবশেষে ফুটফুটে এক সন্তানের জন্ম দেন কৃতি।

ইতোমধ্যেই যারা কৃতি শ্যাননের ‘মিমি’ সিনেমাটি দেখে ফেলেছেন, তারা প্রশংসায় পঞ্চমুখ। প্রশংসিত হয়েছে কৃতি ও পঙ্কজ ত্রিপাঠির অভিনয় দক্ষতা।

ট্যাগ: bdnewshour24