banglanewspaper

চীনের বিশিষ্ট ধনকুবের (বিলিওনেয়ার) সান ডাউকে বুধবার ১৮ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। তিনি স্পষ্টভাষী হিসেবে পরিচিত। দেশটিতে এর আগেও স্পষ্টভাষী ব্যবসায়ীদের শাস্তি দেয়া হয়েছে। সূত্র: বিবিসি।

সান ডাউ উত্তরাঞ্চলের হেবেই প্রদেশে বেসরকারি কৃষি ব্যবসা পরিচালনা করেন। চীনে বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সানের প্রতিষ্ঠান একটি। ৬৭ বছর বয়সী সান ডাউ এর আগে মানবাধিকার ও রাজনৈতিকভাবে সংবেদনশীল বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন। তার বিরুদ্ধে ‘সমস্যা সৃষ্টিতে উস্কানি দেয়ার’ অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে।


তার বিরুদ্ধে অন্যান্য অভিযোগের মধ্যে রয়েছে, অবৈধভাবে কৃষিজমি দখল, রাষ্ট্রীয় সংস্থায় হামলা চালাতে মানুষ জড় করা ও সরকারি কর্মচারীদের দায়িত্ব পালনে বিঘ্ন সৃষ্টি করা। সান ডাউকে ৩.১১ মিলিয়ন ইউয়ান জরিমানাও করা হয়েছে।

সানের কোম্পানি মাংস প্রক্রিয়াজাতকরণ, পোষাপ্রাণীর খাদ্য তৈরি সহ অনেক কিছুই উৎপাদন করে থাকে। চীনে এই ধরনের কোম্পানিগুলোর মধ্যে সানের কোম্পানি বৃহত্তম।

জানা গেছে, গত বছর সানকে আটক করা হয়। সঙ্গে তার স্বজন ও ব্যবসা সহযোগী সহ আরো ২০ জনকে আটক করা হয়েছিল। সরকার-পরিচালিত একটি ফার্মের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে বিরোধ ইস্যুতে তাদের আটক করা হয়।

ওই সময় সান বলেছিলেন, ওই বিরোধের জের ধরে তার ডজন খানেক কর্মী পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হয়েছেন।

বলা হয়, চীনে রাজনৈতিকভাবে ভিন্নমতাবলম্বীদের সঙ্গে সানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। পূর্বে তিনি সরকারের গ্র্যাম্য নীতির সমালোচনা করেছিলেন।

‘অবৈধভাবে তহবিল সংগ্রহের’ অপরাধে ২০০৩ সালে সানকে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল। কিন্তু মানুষের কাছ থেকে ব্যাপক সমর্থন পাওয়ায় তাকে মুক্তি দেয়া হয়েছিল। এবার সানের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে তার অধিকাংশই শুনানিতে তিনি অস্বীকার করেন এবং নিজেকে ‘কমিউনিস্ট পার্টির অসাধারণ সদস্য’ হিসেবে উল্লেখ করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24