banglanewspaper

স্বামী রাজ কুন্দ্রার পনোগ্রাফি মামলায় তার নাম জড়িয়ে ইমেজ নষ্ট করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছিলেন বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি। এ জন্য তিনি বম্বে হাইকোর্টে ২৫ কোটি টাকার মানহানি মামলাও করেন গত বৃহস্পতিবার। মামলায় আসামি করেছিলেন কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম ও ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক মাধ্যমগুলোকে।

কিন্তু শিল্পা শেঠির সে মামলা ধোপে টিকল না। বরং বম্বে আদালত অভিনেত্রীকে দু’কথা শুনিয়ে দিয়েছে। মামলার শুনানির পর বম্বে হাইকোটের বিচারপতি গৌতম প্যাটেল বলেন, শিল্পা তার আবেদনে যা বলেছেন, তা কার্যকর হলে সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হবে। তাছাড়া পুলিশের দেওয়া তথ্য সংবাদ মাধ্যম তুলে ধরলে তা মানহানিকর হতে পারে না।


গত মঙ্গলবার স্বামী রাজ কুন্দ্রার অফিসে তল্লাশি চালায় পুলিশ। সেখানে রাজের সঙ্গে শিল্পাও উপস্থিত ছিলেন। এ সময় উত্তেজিত হয়ে রাজের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েছিলেন শিল্পা। সেই ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন অভিনেত্রী। শুনানিতে শিল্পার আইনজীবী বলেন, ‘স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে যা হয়েছে, তা জনসমক্ষে তুলে ধরা উচিত হয়নি।’

তবে বিচারকের পাল্টা যুক্তি , শিল্পা এবং রাজের মধ্যে যা ঘটেছে, তা সকলের সামনেই ঘটেছে এবং অপরাধ দমন শাখা সূত্রেই সেই খবর পাওয়া গেছে। জনসমক্ষে শিল্পার জীবন কেমন হবে, সেটা উনি নিজেই বেছে নিয়েছেন। খবরে বলা হয়েছে উনি (শিল্পা) ওঁনার স্বামীকে দেখে কেঁদেছেন, ঝগড়া করেছেন। এটা মানহানিকর নয়। এর মাধ্যমে বোঝা যায় ওঁনার মধ্যে অনুভূতি কাজ করে।’

পাশাপাশি বিচারক প্যাটেল তাঁর রায়ে পরিষ্কার করে জানিয়ে দিয়েছেন, শিল্পাকে নিয়ে সংবাদ মাধ্যমের কোনো প্রতিবেদনে তার দুই সন্তানকে জড়ানো যাবে না। এটা শিল্পার গোপনীয়তা বজায় রাখার অধিকারের মধ্যেই পড়ে। সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা এবং শিল্পার গোপনীয়তাকে সম্মান করার মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখার কথাও বলেছেন তিনি।

পর্ন ছবি তৈরি ও তার অ্যাপের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে গত ১৯ জুলাই শিল্পার স্বামী রাজ কুন্দ্রাকে গ্রেপ্তার করে মুম্বাই পুলিশের অপরাধ দমন শাখা। বর্তমানে তিনি জেলে রয়েছে। দুই দফায় জামিনের আবেদন করেও জামিন পাননি। রাজের এই পর্নোগ্রাফ্রিকাণ্ডে শিল্পারও যোগ আছে কি না, তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ইতোমধ্যে অভিনেত্রী বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24