banglanewspaper

আফগানিস্তানের সাবেক মন্ত্রী জার্মানির রাস্তায় পিৎজা বিক্রি করছেন! সেই ছবি ছড়িয়ে পড়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে। সৈয়দ আহমেদ শাহ সাদাত ২০১৮ সালে গনি মন্ত্রিসভায় যোগ দেন। কিন্তু পরবর্তীতে মতানৈক্যের কারণে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন। পাড়ি দেন জার্মানিতে। টাকা ফুরিয়ে যাওয়ায় সেখানে তাঁকে পিৎজা ডেলিভারির কাজ নিতে হয়।

২০১৮ সালে আফগানিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির মন্ত্রিসভায় যোগাযোগ ও প্রযুক্তি মন্ত্রী হিসেবে যোগ দেন সাদাত। দুই বছর আফগানিস্তানে মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব সামলাবার পর গনির সঙ্গে মতানৈক্যের জেরে তিনি পদত্যাগ করেন। গত বছর ডিসেম্বর থেকে সাদাত জার্মানির লিপজিগে থাকছেন। পেট চালাতে সেখানেই পিৎজা ডেলিভারির কাজ নিতে হয়েছে তাঁকে।


স্কাই নিউজকে সাদাত জানিয়েছেন, জার্মানি এসে টাকা ফুরিয়ে যাওয়ায় বাধ্য হয়ে তাঁকে পিৎজা ডেলিভারির কাজ নিতে হয়েছে। অক্সফোর্ডের স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী সাদাত দীর্ঘদিন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের একাধিক বহুজাতিক সংস্থার উচ্চ পদে কাজ করেছেন।

আফগান সরকারের সঙ্গেও কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে সাবেক এই আফগান মন্ত্রীর। টেলিকম ক্ষেত্রে ২৩ বছর কাজ করেছেন তিনি। কাজের সূত্রে ঘুরেছেন সৌদিসহ বিশ্বের ১৩টি দেশ। ২০১৮ সালে চাকরি ছেড়ে আফগান মন্ত্রিসভায় যোগ দেন। ২০২০ সালে সব ছেড়ে জার্মানি যাত্রা। তখন থেকেই পিৎজা ডেলিভারির কাজ করছেন।

কিন্তু যিনি চার পাশে নিরাপত্তারক্ষী নিয়ে থাকতে অভ্যস্ত, সাইকেল নিয়ে রাস্তায় ঘুরে ঘুরে পিৎজা ডেলিভারি করতে অসুবিধা হচ্ছে না? স্কাই নিউজকে সাদাত জানিয়েছেন, তাঁর জীবনযাত্রা এশিয়া ও আরব দুনিয়ায় ক্ষমতাশালীদের সঙ্গে মেলালে চলবে না।

আফগানিস্তানে গনি সরকারের পতনের আশঙ্কা করেছিলেন? দেশ চালানোর কাজ ছেড়ে লিপজিগের রাস্তায় পিৎজা ডেলিভারির কাজ নেওয়া সাবেক আফগান মন্ত্রী বলছেন, ‘গনি সরকারের এত দ্রুত পতন হবে আমি ভাবতে পারিনি।’

ট্যাগ: bdnewshour24