banglanewspaper

তালেবানের একজন মুখপাত্র বলেছেন যে, ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারে যে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছিল তাতে ওসামা বিন লাদেনের জড়িত থাকার কোনো প্রমাণ নেই। যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াশিংটন পোস্টে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

৯/১১ হামলার ঘটনায় নড়ে গিয়েছিল বিশ্বের সর্বশক্তিমান দেশ যুক্তরাষ্ট্রের ভিত। এই ঘটনা ঘটিয়েছিল সন্ত্রাসীগোষ্ঠী আল কায়েদা। যে হামলার পেছনের কারিগর ছিলেন ওসামান বিন লাদেন। ওই সময় আফগানিস্তানে ক্ষমতায় ছিল তালেবান। তালেবান আল কায়েদাকে আশ্রয় দিয়েছে এমন অভিযোগ এনে ৯/১১ ঘটনার পর আফগানিস্তানে হামলা করে যুক্তরাষ্ট্র। ক্ষমতাচ্যুত হয় তালেবান।


এক সাক্ষাৎকারে তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, ‘‌লাদেন যখন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে একটা বড় ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছিল, সে তখন আফগানিস্তানেই ছিল। কিন্তু লাদেনই যে আমেরিকার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার এবং পেন্টাগনে হামলা চালিয়েছিল, তালেবান সেই তথ্য মানে না।’‌

তিনি আরো বলেছেন যে, অতীতেও তালেবান মানেনি লাদেন এই হামলার ষড়যন্ত্রী। আগামী দিনেও মানবে না। উল্টা তিনি আঙুল তুলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের দিকেই। বলেছেন, ‘‌আফগানিস্তানে যুদ্ধ শুধু একটা অজুহাত ছিল মাত্র।’

এখন তালেবান ফের আফগানিস্তানের ক্ষমতায় এসেছে। প্রশ্ন উঠছে, ফের কি এই দেশে ঘাঁটি গড়বে সন্ত্রাসবাদীরা? এ প্রসঙ্গে জাবিউল্লাহ স্পষ্ট বলেছেন, ‘‌তালেবান প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এই দেশকে কোনোভাবেই সন্ত্রাসের কাজে ব্যবহার করতে দেবে না।’‌

যুক্তরাষ্ট্র যে আফগানিস্তান ছেড়ে চলে যাচ্ছে তা নিয়ে তারা খুশি বলেও জানিয়েছে তালেবান।

ট্যাগ: bdnewshour24