banglanewspaper

কাবুল বিমানবন্দরের নিকটে রবিবার বিস্ফোরক দ্রব্য বহনকারী একটি গাড়িকে লক্ষ্য করে ড্রোন হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। যাতে ওই গাড়িটি ধ্বংস হয়ে যায়। দাবি করা হচ্ছে, গাড়িটি ব্যবহার করে কাবুল বিমানবন্দরে হামলা চালানোর উদ্দেশ্য ছিল আত্মঘাতী হামলাকারীদের। তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা দাবি করছেন, এই ড্রোন হামলায় বেশ কয়েকজন শিশুসহ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। সূত্র: আল জাজিরা।

খবরে বলা হচ্ছে, নিহত হওয়া ছয়জন বেসামরিক নাগরিকের মধ্যে ৩ জন শিশু রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ড বলেছে, ‘তারা বেসামরিক নাগরিক হতাহতের খবরের ব্যাপারে অবগত আছেন।’


গত বৃহস্পতিবার কাবুল বিমানবন্দরের নিকটে বিস্ফোরণ ঘটায় জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামি স্টেট (আইএস)। তারপর সন্ত্রাসীদের লক্ষ্য করে দুইবার বিমান হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবারের হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের ১৩ জন সেনা নিহত হয়। মোট নিহতের সংখ্যা প্রায় ১৭৫ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, তারা রবিবার যে ড্রোন হামলা চালিয়েছে তাতে দুজন আইএসকেপি সদস্য নিহত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ড বলছে, ওই গাড়িতে বিস্ফোরক দ্রব্য থাকায় তা শক্তিশালী বিস্ফোরণ ঘটায়। এর কারণে অতিরিক্ত হতাহত হতে পারে। তারা হামলার ফলাফল এখনও মূল্যায়ন করে দেখছে। তাদের কারণে যদি কোনো নিষ্পাপ প্রাণ ঝরে তাতে তারা দুঃখ পাবেন।

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম সিএনএন বলছে, ড্রোন হামলার এই ঘটনায় ৯ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়। যার মধ্যে ৬ জন শিশু রয়েছে। নিহত ব্যক্তিরা সবাই একই পরিবারের।

যুক্তরাষ্ট্র যখন আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার খুবই কাছাকাছি সময়ে রয়েছে তখনই একের পর পর হামলার ঘটনা ঘটছে আফগানিস্তানে।

ট্যাগ: bdnewshour24