banglanewspaper

টাইগারদের জয়ের ধারা থামানোর পর ব্লাক ক্যাপসদের চাওয়া এখন সিরিজে সমতায় ফেরা। অপরদিকে আগামীকাল চতুর্থ ম্যাচেই বাংলাদেশের লক্ষ্য সিরিজ জয়। ঘরের মাঠে অল্প রানের লজ্জাটাকে পুঁজি বানিয়ে মাহমুদউল্লাহদের চোখ যেমন শিরোপায় তেমনি সিরিজে ফেরার সুযোগ কাজে লাগাতে মরিয়া কিউইরা।

তবে কৌতুহলি সমর্থকের প্রশ্ন থাকতেই পারে- কাল মিরপুরেই কি রচিত হবে নতুন ইতিহাস নাকি অপেক্ষা বাড়াবে টাইগাররা? অবশ্য জয়-পরাজয়ের সমীকরণটা যাইহোক চোখ রাখতে হবে ম্যাচের শেষ অবদি। যদিও বিকেলের খেলায় নিজেদের নিংড়ে দিয়ে জয়ের দিকেই চোখ রাখবে মাহমুদউল্লাহ-লাথাম দুজনেই।

মিরপুরের সিরিজ শুরুর আগে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১০ বারের দেখায় কোনো জয়ই পায়নি বাংলাদেশ। ১১তম বারেই তোপ দাগেন টাইগার বোলাররা। কিউইদের সর্বনিম্ন রানের লজ্জা দেওয়ার ম্যাচে দারুণ জয় তুলে সিরিজে এগিয়ে থাকেন মাহমুদউল্লাহরা। দ্বিতীয় ম্যাচে টি-টোয়েন্টি সুলভ খেলা দেখা গেলেও শেষটা হয় রোমাঞ্চকর। শেষ বলের লড়াইয়ে অবশ্য জয় বাংলাদেশই পায়। আর তার সঙ্গে পরের ম্যাচেই সিরিজ জয়ের আশা জাগিয়ে রাখেন মাহমুদউল্লাহরা।

কিন্তু সেখানে খেই হারায় টাইগার ব্যাটাররা। সাকিব-লিটনদের ব্যর্থতার দিনে কিউইরা থামিয়ে দেন স্বাগতিকদের। শুধু থামিয়েই থেমে থাকেনি তারা, দিয়েছে এই সংস্করণের দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রানের লজ্জা। তবে তৃতীয় ম্যাচের লজ্জার এই হার থেকে শিক্ষা নিয়ে চতুর্থ ম্যাচেই সিরিজ নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ।

ম্যাচ হেরে টাইগার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর কণ্ঠে ছিল দৃঢ়তা। ‘আমরা সিরিজে এখনও এগিয়ে আছি। আরও দুটি ম্যাচ বাকি আছে। পরের ম্যাচ জিতে সিরিজ জয়ের চেষ্টা করব।’

অবশ্য টাইগারদের সেই কাজটা যে সহজেই হাসিল করতে দেবে না নিউজিল্যান্ড- তা গতকাল কিউই কোচ গ্লেন পকন্যালের কথায় স্পষ্ট ছিলো। অনুশীলনের মাঝে তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশের ঘুরে দাঁড়ানোর বারুদের জবাবে তারাও থাকবেন ঝাঁজালো।

আগুনের জবাব ‘আগুনে’ দিতে চাওয়া কিউই কোচ বলেছেন, ‘তারা দেশের মাঠে শুধু আমাদের বিপক্ষে নয়, সব দলের বিপক্ষেই দুর্দান্ত। এভাবে হারার পর তাই তাদের রক্তক্ষরণ হওয়ার কথা। তারা শক্তভাবেই ফিরে আসতে চাইবে। আমরা তাদের পাল্টা আক্রমণের জন্য অবশ্যই প্রস্তুত। আমরা আগুনের জবাবে আগুন দিয়েই লড়ব। আমরা লড়াইয়ের জন্য মুখিয়ে আছি।’

পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে অল্প রানে গুটিয়ে বড় ব্যবধানের হারে সিরিজ শুরু করেছিল নিউজিল্যান্ড। পরের ম্যাচেই লড়াই জমিয়ে তুলে তারা। তৃতীয় ম্যাচে গিয়ে বাংলাদেশকেই হারায় বড় ব্যবধানে। কিউইরা জানে, নিজেদের মাঠে ৭৬ রানে গুটিয়ে যাওয়ার জবাব কঠিনভাবে দিতে চাইবে মাহমুদউল্লাহর দল। তাই তারা প্রস্তুত রয়েছে ম্যাচ খেলতে। বাংলাদেশও চাইবে প্রথমবারের মতো সিরিজে এগিয়ে। এখন দেখার বিষয় কিউইদের প্রতিরোধের আগুনে পুড়বে নাকি ইতিহাস লিখবে টাইগাররা? উত্তরের পেতে অপেক্ষা শুধু সময়ের।

ট্যাগ: bdnewshour24