banglanewspaper

ব্যস্ত একটা সময় কাটাতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। অক্টোবরের শুরুতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নেওয়ার পর দেশে ফিরেই তাদের মোকাবিলা করতে হবে পাকিস্তানকে। আগামী ১৭ অক্টোবর শুরু হওয়া বৈশ্বিক টি-টোয়েন্টি সংস্করণের আসরটি শেষ হবে ১৪ নভেম্বর। এর ঠিক পাঁচ দিন পর মিরপুরে প্রায় ছয় বছর পর খেলবে পাকিস্তান। তাই বিশ্বকাপের পরপরই ঢাকায় উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবে দলটি।

মঙ্গলবার আইসিসির ভবিষ্যৎ সফরসূচিতে থাকা সিরিজটির সূচি ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সেখানে পাকিস্তানের বিপক্ষে দুই ফরম্যাটে সিরিজ খেলবে সাকিব-রিয়াদরা। তিনটি টি-টোয়েন্টি সহ আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তর্ভুক্ত দুই টেস্টও খেলবে বাংলাদেশ।

ঘোষিত সূচিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে দুটি ভেন্যুতে সিরিজ খেলবে পাকিস্তান। ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতম সংস্করণের তিন ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে। ১৯, ২০ ও ২২ নভেম্বর সিরিজ শেষে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট। ২৬ নভেম্বর শুরু হওয়া পাঁচ দিনের টেস্ট শেষে মিরপুরে ফিরবে দুই দল। শেষ ও দ্বিতীয় টেস্ট শুরু ৪ ডিসেম্বর।

বিসিবির নির্ধারিত কোভিড প্রটোকল অনুযায়ী সিরিজটি হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী। তিনি বলেছেন, ‘আমরা যে স্ট্যান্ডার্ড বেঞ্চমার্ক ঠিক করেছি সেভাবেই আমাদের প্রটোকল ও জৈব সুরক্ষা বলয় হবে। আমরা আমাদের যে গাইডলাইন তা সফরকারী দলকে অবহিত করব, সেই অনুযায়ীই বাস্তবায়ন করব।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে এর আগে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে শেষ খেলেছিলেন চলতি বছরের শুরুর দিকে। সেখানে কয়েক দফার সফরে টি-টোয়েন্টির পর টেস্ট সিরিজও হারে বাংলাদেশ। তবে বাংলাদেশের মাটিতে পাকিস্তান পূর্নাঙ্গ সিরিজ খেলেছে ঠিক ছয় বছর আগে ২০১৫ সালে। লম্বা বিরতির পর ফের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে ঢাকায় আসছে এশিয়ার দলটি।

ট্যাগ: bdnewshour24 পাকিস্তান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ