banglanewspaper

যেসব গর্ভবতী নারী এমআরএনএ ভ্যাকসিন নিয়েছেন তাঁদের সন্তানের শরীরে তৈরি হয়েছে করোনার অ্যান্টিবডি। এমনটাই দাবি আমেরিকান জার্নাল অব অবস্টেট্রিক্স অ্যান্ড গাইনোকোলজির। ৩৬ জন শিশুর দেহে করোনার অ্যান্টিবডি মিলেছে। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, যে সকল মায়েরা গর্ভবতী অবস্থায় মডার্না বা ফাইজার ভ্যাকসিন নিয়েছেন তাঁদের সন্তানের শরীরে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিবডি মিলেছে।

আর এই তথ্য সামনে আসতেই গর্ভবতী নারীদের ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহ বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে। কম সংখ্যক নারী ও তাঁদের সন্তানের ওপর পরী‌ক্ষা-‌নিরীক্ষা চালানো হয়েছে। আর এরপরই বৃহৎ পরিমাণে গবেষণা চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সন্তানের শরীরে ওই অ্যান্টিবডি কতদিন থাকছে তা নিয়েও পরী‌ক্ষা-‌নিরীক্ষা চালানো হবে।

প্রসূতি বিশেষজ্ঞ এবং গবেষণার সহ-লেখক অ্যাশলে রোমান বলেন, ‘‌আমরা এই তথ্য তুলনামূলকভাবে তাড়াতাড়ি বের করে দিয়েছি। কারণ এটি একটি অনন্য অনুসন্ধান এবং এটির যত্নের জন্য গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব রয়েছ। এই মুহূর্তে আমরা সব গর্ভবতী নারীর মাতৃ সুবিধার জন্য ভ্যাকসিন গ্রহণের পরামর্শ দিচ্ছি।’‌

এমআরএনএ ভ্যাকসিন শরীরকে এক ধরনের নির্দেশনা প্রদান করে। এই নির্দেশনার মাধ্যমে এমন এক ধরনের প্রোটিন তৈরি হয় যা করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা করে। অন্যদিকে, কোভিশিল্ডের মাধ্যমে ভেক্টর ভাইরাস ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। করোনাভাইরাস বাসা বাঁধতে গেলে তখন সেই ভেক্টর ভাইরাস তাকে বাধা দেয়। সূত্র: আজকাল

ট্যাগ: গর্ভবতী