banglanewspaper

ব্যাপকভাবে টিকা প্রয়োগের মাধ্যমে সমগ্র বিশ্বে এখন করোনা মোকাবেলার চেষ্টা করা হচ্ছে। টিকা প্রয়োগের মাধ্যমে ইংল্যান্ডে ১ লাখ ২৩ হাজার মৃত্যু প্রতিরোধ করা গেছে গেলে জানিয়েছে দেশটির পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড (পিএইচই)। সূত্র: বিবিসি।

এর আগের হিসাবে বলা হয়েছিল, টিকা প্রয়োগের মাধ্যমে ১ লাখ ১২ হাজার ৩০০ মৃত্যু কমানো গেছে। এছাড়া দেশটিতে টিকা প্রয়োগের ফলে ৪৫ বা তার বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা ২ লাখ ৩০ হাজার ৮০০ জন কমেছে বলে জানানো হয়েছে।

এদিকে, যুক্তরাজ্যের একজন ভ্যাকসিন বিশেষজ্ঞ বলেছেন, করোনা আরও ভয়াবহ রূপ ধারণ করবে এমনটি মনে করার কারণ নেই। এই ভাইরাস সামনে মৌসুমি করোনাভাইরাস হিসেবে পরিণত হবে। অর্থাৎ, সাধারণ জ্বর, সর্দি, কাশি হলে যেমনটি অনুভব হয় তেমনটিই হবে।

একটি ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে এমনটি বলেছেন, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিনের ডিজাইনার প্রফেসর ডেম সারাহ গিলবার্ট।

এই ভ্যাকসিন বিশেষজ্ঞ বলেছেন, ‘আমরা সাধারণত দেখি যে, ভাইরাস যত দ্রুত ছড়াতে শুরু করে ততোই তার শক্তি কমে যায়। আমরা সামনে করোনার আরও ভয়াবহ রূপ দেখতে পাব এমনটি মনে করার কোনো কারণ নেই। মানুষের শরীরে আস্তে আস্তে ইমিউনিটি তৈরি হবে। এটি সাধারণ ভাইরাসে পরিণত হবে।’

তিনি বলেন, ‘মৌসুমি করোনাভাইরাসের আক্রমণে ঠাণ্ডাজনিত সাধারণ সমস্যা দেখা দেয়। সার্স-কোভ-২ ও এমনই হবে।’

ট্যাগ: টিকা