banglanewspaper

ইসরায়েলি কারাগারে প্রায় দুই বছর আটক থাকার পর মুক্তি পেয়েছেন ফিলিস্তিনি রাজনীতিক ও নাগরিক সমাজের নেতা খালিদা জারার। খালিদা ফিলিস্তিনের বামপন্থী রাজনীতির পরিচিত মুখ ও বিলুপ্ত ফিলিস্তিনি লেজিসলেটিভ কাউন্সিলের (পিএলএ) সদস্য। 

স্থানীয় সময় রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পশ্চিম তীরের জেনিন শহরের একটি সীমান্তচৌকি দিয়ে ফিলিস্তিনে ফেরেন ৫৮ বছর বয়সী খালিদা।   

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, খালিদা জারারের দুই মেয়ে রয়েছে। স্বাস্থ্যগত জটিলতার কারণে রামাল্লায় গত জুলাইয়ে তার এক মেয়ের মৃত্যু হয়। মেয়ের জানাজায় মায়ের অংশ নেওয়ার জন্য ওই সময় খালিদা জারারকে মুক্তি দিতে ইসরায়েলকে আহ্বান জানিয়ে গণদাবি তোলা হয়েছিল। কিন্তু এরপরও ইসরায়েল ফিলিস্তিনি এমপি খালিদা জারারকে মুক্তি দেয়নি।

রামাল্লাভিত্তিক অধিকার সংগঠন আদামির প্রিজনার্স বলেছে, আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে খালিদার মতো অনেককেই আটক রেখেছে ইসরায়েল।

এদিকে, ইসরায়েলের কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পর প্রথমে রামাল্লায় মেয়ে সুহার কবর জিয়ারত করেছেন ফিলিস্তিনি এমপি খালিদা। সেখান থেকে বের হয়ে তিনি রামাল্লায় তার কারামুক্তি উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

২০১৯ সালের ৩১ অক্টোবর নিজ বাসভবনে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেফতার হন খালিদা জারার। প্রায় ৮ মাস পর তিনি মুক্তি পান। কিন্তু কোনো বিচার কিংবা অভিযোগ ছাড়াই প্রশাসনিক বন্দি নীতির আওতায় ২০ মাসের জন্য আবারও তাকে বন্দি করা হয়। চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত প্রশাসনিক বন্দি হিসেবে তিনি কারাভোগ করেছেন।

ট্যাগ: ফিলিস্তিনি