banglanewspaper

দলীয় নানামুখী কোন্দলে জর্জরিত নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের নতুন আহ্বায়ক কমিটি অবশেষে ঘোষণা করা হলো। এই কমিটিতে জায়গা হয়নি আলোচিত রাজনীতিক আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই এবং বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার।

বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার অনুমোদনে এই আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। জেলার সাবেক সভাপতি খায়রুল আনাম সেলিমকে আহ্বায়ক করে জেলা আওয়ামী লীগের ৮৭ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়।

এতে কাদের মির্জার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ হিসেবে পরিচিত জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরীকে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে। তার স্ত্রীকেও রাখা হয়েছে নতুন কমিটিতে।

ঘোষিত কমিটিতে যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে রয়েছেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শিহাব উদ্দিন শাহীন ও নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র সহিদুল্লাহ খান সোহেল।

কাদের মির্জা বসুরহাট পৌরসভার বর্তমান মেয়র। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের কমিটির সহসভাপতি পদে ছিলেন। তবে গুরুত্বপূর্ণ এই পদে থেকেও বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনের আগে দলের নেতাদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করে আলোচনায় আসেন কাদের মির্জা। এক পর্যায়ে নোয়াখালীর দুজন সংসদ সদস্য এবং দলের স্থানীয় একাধিক নেতার নাম উল্লেখ করে নানা ধরনের বক্তব্য দেন। এই বিরোধের জেরে একাধিকবার সংঘর্ষ হয় এবং এতে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটে।

গত ২৪ জানুয়ারি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সব কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করে জেলা আওয়ামী লীগ। কিন্তু এরপরও প্রতিনিয়ত দলের এবং বড় ভাই ওবায়দুল কাদেরের সমালোচনা করে ফেসবুক লাইভে কথা বলেন কাদের মির্জা৷ যা নিয়ে দলের ভেতরে বাইরে তার কড়া সমালোচনাও করেছেন।

এক পর্যায়ে গত ৩১ মার্চ আওয়ামী লীগ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন কাদের মির্জা। অবশ্য এমন ঘোষণার দেড় মাস পর বসুরহাটে এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগে ফেরার ঘোষণাও দেন তিনি।

ট্যাগ: কাদের মির্জা