banglanewspaper

স্ত্রী মেহরুবা সালসাবিলের সঙ্গে সম্পর্কে বহুদিন আগেই ফাটল ধরেছে বিতর্কিত গায়ক মাইনুল আহসান নোবেলের। তারা আলাদা থাকছেন। একে অপরের বিরুদ্ধে তাদের অভিযোগের অন্ত নেই। কিছুদিন আগে নোবেলকে তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন স্ত্রী। সোশ্যাল মিডিয়ায় নোবেল ‘ডিভোর্স’ লিখে পোস্ট করলেই বিষয়টি জানাজানি হয়। এর পরই বদলে যায় সমীকরণ।

ডিভোর্সের নোটিশ পাওয়ার পর নোবেল ফেসবুকে জানান, তিনি আবার বিয়ে করবেন। তাকে এমপি-মন্ত্রীর মেয়েও বিয়ে করতে প্রস্তুত। একটা মেয়ের সঙ্গে তার অন্তরঙ্গ ছবিও ফাঁস হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। গত সোমবার আবার ফেসবুকে একটি পোস্টে তিনি দাবি করেন, স্ত্রীর সঙ্গে তার বিবাদ পারিবারিকভাবে মীমাংসা করা হচ্ছে। বিগত কিছুদিনের কাদা ছোঁড়াছুঁড়ির জন্য তিনি দুঃখপ্রকাশও করেন।

ব্যাস, এর পরই মন্তব্যের ঘরে ধেয়ে আসতে শুরু করে কুমন্তব্য ও কটাক্ষের তীর। কেউ লিখেছেন, নোবেলকে পাগলা কুকুরে কামড়েছে। কেউ আবার লিখেছেন, নেশার ঘোরে আবোল তাবোল পোস্ট করছেন গায়ক। একজন লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানা নোবেলের মতো বিরল প্রজাতির প্রাণী পেয়ে গর্বিত।’ আরেকজন লিখেছেন, ‘বুঝেছি, শেষ মুহূর্তে এমপি-মন্ত্রীর মেয়ে তোমাকে আর বিয়েটা করতে রাজি হয়নি।’

রাই ইসলাম নামে এক তরুণী নোবেলকে উদ্দেশ্য করে লিখেছেন, ‘সব দোষ পাবনা মেন্টাল হসপিটালের গার্ডদের। তারা সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করে নাই বিধায় এই সব আজব পাগলগুলা হাসপাতাল থেকে পালাইছে। এদেরকে ফেরত নেওয়ার জন্য আমি পাবনা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।’ এর পাশাপাশি বহু নেটিজেন নোবেলকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও করেছেন।

এদিকে, সম্প্রতি নোবেলের স্ত্রী সালসাবিল সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বছরখানেক আগেই তিনি নোবেলের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় নির্যাতনের অভিযোগ করেছিলেন। তার কথায়, ‘দিনের পর দিন মারধর ও নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গত ১১ সেপ্টেম্বর বাধ্য হয়ে নোবেলকে তালাকের নোটিশ পাঠাই। সে মানসিকভাবে অসুস্থ, চরমভাবে মাদকাসক্ত।’

সালসাবিল আরও দাবি করেন, ‘একাধিক মহিলার সঙ্গে মেলামেশা করতো নোবেল। সে সবের যথেষ্ট প্রমাণও আমার কাছে আছে। শুরুতে ভেবেছিলাম, ঠিক হয়ে যাবে। অনেক চেষ্টাও করেছিলাম। কিন্তু হয়নি। এসব কারণে ওর সঙ্গে সংসার না করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিই। আমার পরিবারের কানে এসব খবর গেলে তারাও নোবেলের প্রতি খুব বিরক্ত হন।’

খুব অল্পদিনের আলাপেই নোবেলের সঙ্গে বিয়ে হয় মেহরুবা সালসাবিলের। হোয়াটসঅ্যাপে কিছুদিন কথাবার্তা, প্রেমের পরই তারা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। ২০১৯ এর ১৫ নভেম্বর বিয়ে করেন নোবেল ও সালসাবিল। গায়কের স্ত্রী বলেন, ‘বিয়ের ছয় মাসের মাথায় জটিলতা তৈরি হয়। মূলত মাদক নেওয়া ও অন্য নারীর সঙ্গে মেলামেশায় বাধা দিতে গেলেই সে আমাকে মারধর করতো।’

এখানেই শেষ নয়, বেশ কিছুদিন আগে স্ত্রীর অন্তঃসত্ত্বা হওয়া নিয়েও বিতর্কিত পোস্ট করেন নোবেল। সালসাবিল গর্ভপাত করিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেছিলেন গায়ক। তবে সে সময় নোবেলের এই অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেন সালসাবিল। তা নিয়েও বিতর্ক কম হয়নি। মোটকথা, ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই একের পর এক বিতর্কের জন্ম দিয়ে চলেছেন ‘সারেগামাপা’ খ্যাত এই গায়ক।

ট্যাগ: নোবেল