banglanewspaper

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর সিনেমা হলে মুক্তি পেতে যাচ্ছে এন রাশিদ চৌধুরী পরিচালিত ‘চন্দ্রাবতী কথা’। এটি নির্মিত হয়েছে সরকারি অনুদানে। নির্মাণ শেষে সেন্সর বোর্ডে জমা দেওয়ার পর এক বছরের বেশি সময় আটকে থাকে সিনেমাটি। অবশেষে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে আনকাট ছাড়পত্র পায় ‘চন্দ্রবতী কথা’। প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে চলেছে শুক্রবার।

তার আগে মঙ্গলবার রাতে স্টার সিনেপ্লেক্সের সীমান্ত স্কয়ার শাখায় হয়ে গেল সিনেমাটির প্রিমিয়ার। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান এমপি, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান, নাট্যব্যক্তিত্ব ও চলচ্চিত্র নির্মাতা নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, নির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বলসহ অনেকে। আমন্ত্রিত সকলেই সিনেমাটির ভূয়সী প্রশংসা করেন।

নির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বল বলেন, ‘চন্দ্রাবতী কথা’র প্রিমিয়ার শো দেখে আসলাম। বাংলাদেশে বসে পিরিয়ডিকাল সিনেমা বানানো খুবই কঠিন। সেই হিসেবে পরিচালক এবং পুরো টিমকে সাধুবাদ জানাতেই হয়। অভিনয়শিল্পীরা সবাই পরিচিত, দক্ষ অভিনেতা। সকলেই যার যার সর্বোচ্চ দিয়ে কাজ করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমার জন্য বাড়তি ভালোলাগার কারণ, এই সিনেমার নায়ক ইমতিয়াজ বর্ষণ। ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’-এর পর কোনো বিরতি না দিয়ে ওর অভিনীত দ্বিতীয় সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। এটা খুবই আনন্দের। দোয়েল, নওশাবা, রাকায়েত ভাই, মুরাদ ভাই, তনয়, জয়ন্ত দা’সহ সকলেই ভালো অভিনয় করেছেন। অভিনন্দন পরিচালক এন রাশেদ চৌধুরী এবং পুরো টিমকে।’

নির্মাতা এন রাশিদ চৌধুরী বলেন, ‘অসম্ভব প্রতিভাবান ও সংগ্রামী নারী চন্দ্রাবতীর সারাজীবনের একটি গল্প। তাই এর পরিধিও বড়। চন্দ্রাবতীর জীবনী দেখানোর সঙ্গে সঙ্গে সিনেমাতে ওই সময়ের সামাজিক বিভিন্ন প্রেক্ষাপট, ঘটনা এবং পারফরম্যান্স স্টাইলও উঠে এসেছে।’

এই সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন মডেল ও অভিনেত্রী দিলরুবা দোয়েল এবং চন্দ্রাবতীর প্রেমিক জয়ানন্দের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইমতিয়াজ বর্ষণ। এছাড়া বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, মিতা রহমান, গাজী রাকায়েত, আরমান পারভেজ মুরাদ, কাজী নওশাবা আহমেদ, জয়িতা মহলানবিশ প্রমুখ।

ট্যাগ: চন্দ্রাবতী