banglanewspaper

বগুড়ার একাধিক হত্যা মামলার আসামি হেলাল হোসেন। তার মধ্যে একটি মামলায় তিনি যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত। অথচ গত ২০ বছর ধরে কিনা সেলিম ফকির ওরফে বাউল সেলিম নাম নিয়ে দেশের ভেতরেই ছদ্মবেশে দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন এই সিরিয়াল কিলার। অবশেষে সেই খুনি ধরা পড়েছে র‌্যাবের জালে।

আরও একটি চমকপ্রদ খবর হলো, এই সিরিয়াল কিলারই ছয় বছর আগে গায়ক কিশোর পলাশের একটি মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করেছিলেন। নাম ‘ভাঙা তরী ছেঁড়া পাল’। যেটি ইউটিউব চ্যানেল জি-সিরিজ মিউজিকে প্রকাশ পেয়েছিল। সেখানে কয়েক সেকেন্ডের জন্য দেখা গিয়েছিল বাউল বেশধারী এক ব্যক্তিকে।

সেই মিউজিক ভিডিওর সূত্র ধরেই র‌্যাবের হাতে ধরা পড়ে হেলাল ওরফে সেলিম। র‌্যাবের দাবি, বাউল বেশধারী ওই ব্যক্তি আসলে দুর্ধর্ষ এক খুনি। যিনি অন্তত তিনটি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত এবং যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি।

এ ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ‘ভাঙা তরী ছেঁড়া পাল’ মিউজিক ভিডিওর গায়ক কিশোর পলাশ। তিনি বলেন, ‘আমাদের এই গানের কোনো মডেল ছিল না। শুটিং লোকেশনে যাকে পেয়েছি তাকেই মডেল হওয়ার প্রস্তাব দিই, যদি সে আমাদের গল্পের সঙ্গে মেলে। সে কারণে আমাদের গানে একজন মুচি, রাস্তার মানুষ এবং ওই বাউলশিল্পী আছেন। আসলে ওই বাউল বেশধারী যে একজন সিরিয়াল কিলার তা আমরা বুঝতেই পারিনি।’

বাউলকে খুঁজে পাওয়ার ঘটনা জানিয়ে পলাশ বলেন, ‘আমরা নারায়ণগঞ্জ রেল স্টেশনের আশেপাশে শুটিং করছিলাম। হঠাৎ বাউল সেলিমকে দেখতে পাই রেললাইন দিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন। যেহেতু আমাদের গানটি ফোক ও আধ্যাত্নিক ধরনের, তাই মনে হল, লোকটাকে ভিডিওতে অল্প সময়ের জন্য ধরতে পারলে ভালো হবে। তাকে বললাম, সে এককথায় রাজি। শুটিংও করলাম।’

গায়ক আরও বলেন, ‘ছয় বছর আগে আমরা এই শুটিং করি। এখন জানতে পারলাম লোকটি সিরিয়াল কিলার। ভাবতেই কষ্ট হচ্ছে যে আমার একটা জনপ্রিয় গানের মডেল একজন খুনি।’ পাশাপাশি পলাশ এও বলেন, কাজটি নাকি একদিক থেকে ভালোই হয়েছে। কারণ, তাদের গানের সূত্রে একজন সাজাপ্রাপ্ত খুনের আসামি ধরা পড়েছে।

ট্যাগ: খুন

বিনোদন
চোখ ধাঁধানো বাড়ির মালিক ভুবন বাদ্যকর

banglanewspaper

কাঁচা বাদাম নিয়ে গান গেয়ে গেয়ে সেই কাঁচা বাদাম বিক্রি করতেন ভারতের ভুবন বাদ্যকর। সামাজিক মাধ্যমে তা ভাইরাল হওয়ার পর রাতারাতি পরিচিতি পান তিনি। এ কারণে দূর হয়েছে তার দারিদ্রতাও। মাটির ঘর থেকে তার বাড়িতে উঠেছে নতুন বাড়ি। একতলা ওই বাড়িতে রয়েছে দুটি ঘর, বারান্দা, শৌচাগার ও রান্নাঘর। বাড়ি তৈরিতে এরই মধ্যে লাখ লাখ টাকা খরচ হয়েছে। সেভাবেই সাজানো হচ্ছে বাড়ির ভেতরটা।

বীরভূমের দুবরাজপুরের উড়ালজুড়ি গ্রামে বাড়ি ভুবনের। তার পুরোনোটার পাশেই তিনি তৈরি করছেন স্বপ্নের বাড়ি। বাড়ির বারান্দাও মনের মতো সাজাচ্ছেন ভুবন। তিন-চার লাখ খরচ করছেন তিনি বাড়ির অন্দরসজ্জার জন্য। মার্বেল বসানো হচ্ছে বাড়িতে। পাশাপাশি কীভাবে বারান্দাটি সাজানো হচ্ছে তা-ও জানিয়েছেন বাদ্যকর পরিবারের সদস্যরা।

ভুবনের ছেলে মনোজ বাদ্যকর বলছেন, বারান্দার দেওয়ালে বাবার প্রতিকৃতি আঁকা হয়েছে। বাবা কৃষ্ণের ভক্ত। তাই কৃষ্ণনাম লেখা হয়েছে বারান্দার ফল্স সিলিংয়ে। বারান্দায় কাঠ ও প্লাইউডের কাজ করা হয়েছে। তার সঙ্গে সাজুয্য রেখে ঝোলানো হয়েছে ফ্যান, বাল্বও। নতুন বাড়ি তৈরির বিষয়ে খুশি ভুবনও।

ভুবন বলেন, আপনাদের আশীর্বাদে এই বাড়ি তৈরি করছি। কলকাতার শিল্পী আকাশ বণিক আমার বাড়ি সাজাচ্ছেন। এখনও রং হয়নি। কাজ চলছে। পলেস্তারাও হচ্ছে। আজ পুরো কাজ সম্পূর্ণ হবে। সবাইকে ধন্যবাদ জানাই।

ট্যাগ:

বিনোদন
এমপি নুসরাত নিখোঁজ!

banglanewspaper

পোস্টারে পোস্টারে এলাকা সয়লাব। কোনো পোস্টারে লেখা, ‘বসিরহাটের এমপি নুসরাত জাহান নিখোঁজ, সন্ধান চাই।’ নিচে লেখা, ‘প্রতারিত জনগণ’। কোনো পোস্টারে আবার লেখা হয়েছে, ‘বসিরহাটের এমপি নুসরত জাহান নিখোঁজ, সন্ধান চাই।’ 

আশ্চর্যের হলেও বেশির ভাগ পোস্টারের নিচে লেখা, ‘প্রচারে তৃণমূল’। বসিরহাটের চাঁপাতলার বিস্তীর্ণ এলাকায় দলীয় সংসদ সদস্যের নামে এমন পোস্টার দেখতে পেয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা তড়িঘড়ি তা ছিঁড়ে ফেলার কৌশল নেয়। তবে দলের একাংশ মেনে নিয়েছে, দলীয় এমপিকে এলাকায় দেখতে না পাওয়ার কারণেই এই পোস্টার পড়েছে। কে বা কারা ওই পোস্টার লাগিয়েছেন, তা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। 

গ্রামবাসীদের দাবি, ভোটের পর থেকে দেখা মেলেনি নুসরাতের। তাই এই পোস্টারে তাদের সমর্থন রয়েছে। একই সুর বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোরও।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাতের অন্ধকারে এই পোস্টার দেওয়ালে সাঁটিয়েছে কেউ। তবে বিষয়টি তারা নৈতিকভাবে সমর্থন করছেন বলে জানিয়েছেন গ্রামবাসীদের একাংশ। 

এলাকার বাসিন্দা সামছুর নাহার বিবি বলেন, ‘পোস্টারে যে কথা লেখা আছে তা ঠিক। ভোট দেওয়ার পর থেকে তাকে আর আমরা গ্রামে দেখতে পাইনি।’ তার মতো আরও অনেকেরই একই অভিযোগ।

পোস্টারের খবর পাওয়া মাত্র এলাকা ঘুরে সব পোস্টার ছিঁড়ে ফেলার নির্দেশ দেন চাঁপাতলা গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল প্রধান হুমায়ুন রেজা চৌধুরী। তার গলাতেও পোস্টারের বক্তব্যকে সমর্থনের সুর শোনা যায়। তিনি বলেন, ‘ভোটের পর থেকেসংসদ সদস্য নুসরাতকে সাধারণ মানুষ কাছ থেকে পায়নি। সে কারণে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। এই পোস্টার সেই ক্ষোভেরই বহিঃপ্রকাশ।’ এলাকায় না আসা নিয়ে দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে যে ক্ষোভ রয়েছে তা-ও তিনি স্বীকার করে নেন।

বিজেপি যদিও বিষয়টিকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি। পোস্টার প্রসঙ্গে বিজেপির বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার যুব মোর্চার সভাপতি পলাশ সরকার বলেন, ‘সাংসদ টিকটক আর সিনেমার পর্দায় রয়েছেন। তিনি অন্তরাল থেকে বেরিয়ে এসে মানুষের জন্য কাজ করুন। আসলে তৃণমূলে তার অস্তিত্ব হারিয়ে গেছে।’

সিপিএমও সুর চড়িয়েছে বিষয়টি নিয়ে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা কমিটির সদস্য ইমতিয়াজ হোসেন বলেন, ‘জনগণ সাংসদ নুসরত জাহানকে ভোট দিয়ে প্রতারিত হয়েছেন। এলাকার কোনো উন্নয়ন করেননি। তাকে মানুষ দেখতেই পায়নি। তাই তারা এই পোস্টার সাঁটিয়ে নুসরাতের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন।’

ট্যাগ:

বিনোদন
রত্না ফিরলেন চমক নিয়ে

banglanewspaper

‘কিশোর গ্যাংস্টার’ নামের সিনেমা নিয়ে ফিরছেন ঢালিউডের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা রত্না। ভক্তদের চমকই উপহার দিলেন নতুন সিনেমায়। নবাগত এক নায়ক নিয়েই তার এবারের যাত্রা। মোসাদ্দেক রহমান ফাগুন পরিচালিত সিনেমাটির দৃশ্য ধারণে গাজীপুরে কাজ করছেন সংশ্লিষ্টরা।

নতুন ছবি নিয়ে রত্না বলেন, ‘শহর ও গ্রামের গল্পে ছবিটি নির্মিত হচ্ছে। শহর থেকে গ্রামে এসে খালাতো ভাইয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে যাই। এ নিয়ে নানান কাণ্ড। তারপর কী হয় তা জানতে হলে অবশ্যই প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে ছবিটি দেখতে হবে। বেশ কদিন ধরেই গাজীপুরে শুটিং করছি। গান বাদে আজ আমার অংশের কাজ শেষ হচ্ছে। শিগগির গানের অংশের শুটিং হবে।’

সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি বছরই সিনেমাটি মুক্তি পাবে বলে জানান রত্না। চার বছর আগে সবশেষ রত্নার ‘টাইম মেশিন’ ছবি মুক্তি পায়। এরপর তাকে আর নতুন ছবির শুটিং করতে দেখা যায়নি।

এদিকে রত্না অভিনীত মুক্তির অপেক্ষায় জুয়েল ফারসির ‘অরুণ বরুণ কিরণ মালা’, সত্য রঞ্জন রোমান্সের ‘পরাণ পাখি’সহ আরো বেশ কয়েকটি সিনেমা। শিগগির সিনেমাগুলো প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে বলে জানা যায়।
 

ট্যাগ:

বিনোদন
ফেসবুকে কার ছবি শেয়ার দিলেন মাহি?

banglanewspaper

গাজীপুরের ব্যবসায়ী ও রাজনৈতিক ব্যক্তি রাকিব সরকারকে বিয়ে করে সংসার পেতেছেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা মাহিয়া মাহি।গত বছরের সেপ্টেম্বরে বিয়ের পর থেকে হাসি-আনন্দেই সংসার করে যাচ্ছেন। তবে গত কয়েকদিন ধরে মাহির মনে বিষাদের ছাপ দেখা যাচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার একাধিক পোস্টে সেরকমই ইঙ্গিত পাওয়া যায়। 

সোমবার (১৬ মে) বিকালে ফেসবুকে একটি ছবি শেয়ার দেন মাহি। তাতে দেখা যায়, কালো রঙের টি-শার্ট পরে দূরে উদাস ভঙ্গিমায় তাকিয়ে আছেন।

ছবিটির ক্যাপশনে মাহি লিখেছেন, ‘প্রিয় মানুষটা, তুমি বরং সুখেই থাকো। কাছে না হয় বহু দূরে’। ভক্তদের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, কাকে সুখে থাকার কথা বলছেন মাহি? তার কাছ থেকে দূরেই বা আছেন কে? তবে কি স্বামী রাকিবের সঙ্গে অভিমান পর্ব চলছে? প্রশ্নগুলো নিরুত্তর।

কয়েকদিন আগের আরেকটি পোস্টেও মাহির মন খারাপের ইঙ্গিত পাওয়া যায়। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘একদিন গোপন রক্তক্ষরণ বন্ধ হবে, কোনো এক ভোরবেলায় সুখ পাখি খাঁচায় এসে ধরা দেবে। নদীর ওপারের ওই দূরের ছোট্ট কুঁড়েঘরের নিভু নিভু জ্বলতে থাকা কুপির আলো দেখে সেদিনও আবার ভেবো না, সুখে শুধু তারাই আছে। সুখ পাখি তো তোমার খাঁচাতেই আছে, তুমি শুধু বোঝো না। সুখের লোভ আমাদের সুখী হতে দেয় না।’

সাধারণত মাহির সব পোস্টেই মন্তব্য করেন তার স্বামী রাকিব। তবে এই দুটি পোস্টে তার কোনো মন্তব্য দেখা যায়নি।

উল্লেখ্য, মাহিয়া মাহি এর আগে সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুকে বিয়ে করেছিলেন। ২০১৬ সালে বিয়ের পর প্রায় পাঁচ বছর সংসার করেছেন তারা। গেল বছরের মে মাসে অপুর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ করেন নায়িকা। শোনা যায়, অপুর আগে শাওন নামের আরেক ব্যক্তিকে বিয়ে করেছিলেন মাহি।

ট্যাগ:

বিনোদন
সানি লিওনের সঙ্গে সখ্যতা হয়েছিল সাইমন্ডসের

banglanewspaper

 

সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন বিশ্ব ক্রিকেটের কিংবদন্তি অলরাউন্ডার অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস। শনিবার রাত ১১টা নাগাদ না ফেরার দেশে পাড়ি জমান তিনি। মাত্র ৪৬ বছর বয়সে জীবনের ইনিংস থেমে গেল তার।

ক্রিকেটের বাইরেও সাইমন্ডসের বিনোদন দুনিয়ায় বিচরণ ছিল। অংশ নিয়েছিলেন ভারতের বিতর্কিত জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো বিগ বসে। ২০১১ সালে এই শোয়ের পঞ্চম আসরে দুই সপ্তাহ ছিলেন বিগ বসের ঘরে। ওই সিজনের প্রতিযোগী সানি লিওনের সঙ্গেও সখ্যতা গড়ে উঠেছিল তার।

বিগ বসের ঘরে দারুণ অভিজ্ঞতা হয়েছিল বলে জানিয়েছিলেন সাইমন্ডস। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘আমি প্রতিযোগী সানিকে নিয়ে কোনো দুঃখ পাইনি। আমার মনে হয় ওকে আরও জানতে পারব, ও মজার মেয়ে। একসঙ্গে থাকাটা উপভোগ্য হবে।’

তবে বিগ বসের ঘরে বেশ বিরক্ত হয়েছিলেন সাইমন্ডস। তিনি বলছিলেন, ‘মাঠের বাইরে এতটা দীর্ঘ সময় ধরে ক্যামেরার সামনে থাকা অভ্যাস নেই আমার। কিন্তু বিগ বসের ঘরে পাঁচিলের ওপাশে থেকে যাওয়া পৃথিবীটা না দেখতে পাওয়াটা খুবই বিরক্তিকর। এখান থেকে তো বেরিয়ে যেতে পারব না।’

কুইন্সল্যান্ডে নিজের গাড়ি চালাচ্ছিলেন সাবেক এই তারকা ক্রিকেটার। হারভি রেঞ্জ রোডের কাছে আলিস রিভার ব্রিজ থেকে বামে বাঁক নেয়ার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাড়িটি উল্টে যায়। এ সময় গাড়িতে একাই ছিলেন সাইমন্ডস।

ট্যাগ: