banglanewspaper

সাবেক নৌপরিবহনমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাহজাহান খান বলেছেন, 'বিএনপি'র চেয়ারপার্সন বলেছিলেন- কেউ পদ্মাসেতুতে উঠবেন না, ভেঙে পড়তে পারে। আমি বলি- বিএনপি কেউ এবং খালেদা জিয়া কেউ দয়া করে পদ্মা সেতু দিয়ে যাবেন না। উনারা উঠলে পড়ে ভেঙ্গে পড়তে পারে বলা যায় না। আপনাদের জন্য নৌকা রয়েছে, নৌকা দিয়ে পার হবেন। নৌকা ছাড়া উপায় নেই।'

শুক্রবার (২০ মে) জাতীয় প্রেস ক্লাবের মিলানায়তনে বাংলাদেশ ফার্মাসিউটিক্যালস রিপ্রেজেনটেটিভ এসোসিয়েশন (ফারিয়া) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

শাহজাহান খান বলেন, 'শেখ হাসিনা সরকার শ্রমজীবী মানুষের পক্ষে কথা বলে। তার কাছে বললে সে শুনবে না। এটা আমি মনে করি না। শুধু শেখ হাসিনা নয়, বঙ্গবন্ধুও ট্রেড ইউনিয়নের পক্ষে কথা বলেছেন। তাই আমরা মনে করি, শেখ হাসিনার সরকার শ্রমিক বান্ধব সরকার। আমরা যখনই কোন বিষয়ে দাবি জানিয়েছি এই সরকার কাজ করেছে।'

বিএনপিকে নির্বাচনে আসার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, 'নির্বাচনই একমাত্র পথ যার মধ্য দিয়ে ক্ষমতার রদ বদল হতে পারে। সেখানে আপনি বিজয় লাভ করলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতা হস্তান্তর করবে। আওয়ামী লীগ বিজয়ী হলে তারা আবারও ক্ষমতা লাভ করবে।'

তিনি আরও বলেন, 'জনগণ যাকে ভোট দিবে সেই ক্ষমতায় যাবে। ক্ষমতার পালাবদল হয়েছে এই বাংলাদেশে। নির্বাচনের মধ্য দিয়ে হয়েছে, সেনাবাহিনী দিয়েও ক্ষমতা দখল হয়েছে। এমনও হয়েছে গনভুথ্যানের মধ্য দিয়েও ক্ষমতা পরিবর্তন হয়েছে। এটাই স্বাভাবিক। তবে নির্বাচনের মধ্য দিয়ে যে সাংবিধানিক বিধান রয়েছে সেই বিধানের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় যেতে হবে।'

মানুষ পুড়িয়ে, হত্যা করে কাউকে নির্বাচনে যেতে দেয়া হবে না হুঁশিয়ারি জানিয়ে শাহজাহান খান বলেন,  'আমরা কাউকে শ্রমজীবী, পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তের সিঁড়ি বেয়ে ক্ষমতায় যাবে তার সুযোগ দেয়া হবে না। নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আপনাকে ক্ষমতায় যেতে হবে।'

বাংলাদেশ ফার্মাসিউটিক্যালস রিপ্রেজেনটেটিভ এসোসিয়েশন এর সভাপতি শফিক রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের অনান্য নেতা কর্মীরা।   

ট্যাগ: বিএনপি

রাজনীতি
আ.লীগ ইভিএমের পক্ষে : কাদের

banglanewspaper

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, উল্লেখযোগ্য হারে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) ব্যবহার বাড়াতে হবে। আমরা ইভিএমের পক্ষে এবং এটি জোরালো ও স্পষ্ট।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশন (ইসি) আয়োজিত বৈঠকে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ মনে করে সুষ্ঠু, অবাধ নির্বাচনের জন্য ইসির গ্রহণযোগ্যতা, নিরপেক্ষতা ও সক্ষমতা গুরুত্বপূর্ণ। এ ছাড়া ইসির দায়িত্বশীল নিরপেক্ষ আচরণ, সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত ও ইভিএমে ভোটগ্রহণের পদ্ধতি বৃদ্ধি করতে হবে।'

তিনি বলেন, আমাদের বক্তব্যটি লাউড অ্যান্ড ক্লিয়ার। আগেও আমরা ইসিকে বলেছিলাম, এখানে রাখ-ঢাক করার কিছু নেই। আগামী নির্বাচনে ইভিএমের ব্যবহার বাড়াতে হবে।

ট্যাগ:

রাজনীতি
সরকার বিব্রত হয়, এমন কিছু করবে না: প্রতিশ্রুতি দিয়ে নেতাদের জামিন চায় হেফাজত

banglanewspaper

কারাবন্দি নেতাদের মুক্তি দিলে সরকার ‘বিব্রত’ হয় এমন কর্মকাণ্ডে জড়াবেন না প্রতিশ্রুতি দিয়ে বন্দি নেতাদের মুক্তি চেয়েছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে দেওয়া এক চিঠিতে এ প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়।

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব মাওলানা সাজিদুর রহমানের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল আজ বিকেলে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সঙ্গে বৈঠক করে এই চিঠি দেন।

চিঠির শুরুতেই বলা হয়েছে, মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় আপনার অনুগ্রহে ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রচেষ্টায় ইতোমধ্যে আলেম-ওলামা ও হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের অনেকেই জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। এ জন্য আমরা আপনার ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, আমরা কথা দিচ্ছি, জামিন-পরবর্তী তারা এমন কোনো কর্মকাণ্ডে জড়িত হবে না, যাতে রাষ্ট্র ও সরকারের জন্য বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এক বছরের বেশি সময় আলেম-ওলামারা বন্দী থাকার কারণে তাদের পরিবার এবং নিয়ন্ত্রণাধীন মসজিদ-মাদরাসা অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। বন্দি আলেমদের অনেকে মারাত্মক অসুস্থতায় ভুগছেন। কাউকে কাউকে হুইলচেয়ারে করে আদালতে হাজির করা হচ্ছে।

আজকের বৈঠকে দেশের ১১৬ জন আলেম ও ১ হাজার মাদরাসার নামে গণকমিশনের কথিত শ্বেতপত্র বাজেয়াপ্ত করা, শিক্ষা আইন-২০২২-এর কমিটিতে কওমি মাদরাসার প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা, ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির দুই নেতার মহানবি (সা.)-কে নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্যের জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে প্রতিবাদ জানানোর দাবি জানিয়েছেন হেফাজত নেতারা।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন হেফাজতের নায়েবে আমির মাওলানা মুহাম্মদ ইয়াহইয়া, ফোরকান উল্লাহ খলিল, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইদ্রিস, ঢাকা মহানগর সভাপতি আবদুল কাইয়ুম সোবহানী, সাধারণ সম্পাদক কেফায়েত উল্লাহ আজহারী উপস্থিত ছিলেন।

ট্যাগ:

রাজনীতি
দেশে ফিরলেন রওশন এরশাদ

banglanewspaper

প্রায় আট মাস থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরছেন জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ।

সোমবার (২৭ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান।

জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহাসচিব ছাদ এরশাদ বলেন, পরবর্তী কিছুদিন হোটেল ওয়েস্টিনে থাকবেন রওশন এরশাদ। তাই বিমানবন্দর থেকে সরাসরি গুলশানে হোটেলের উদ্দেশে রওনা করেন তারা। ঢাকায় অবস্থানকালে রওশন এরশাদ সেখানেই থাকবেন। ৩০ জুন বাজেট অধিবেশনের সমাপনীর দিনে উপস্থিত থাকার জন্যই তিনি ঢাকায় এসেছেন। এরপর আগামী ৪ জুলাই চিকিৎসার জন্য আবারও থাইল্যান্ড চলে যাবেন তিনি।

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদ ময়মনসিংহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য।

রওশন এরশাদকে অভ্যর্থনা জানাতে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদেরসহ দলের নেতাকর্মীরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। এর আগে গত বছরের ৫ নভেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে ব্যাংকক যান রওশন এরশাদ।

ট্যাগ:

রাজনীতি
২৫ ইউপি ও তিন পৌরসভায় আ.লীগের প্রার্থী যারা

banglanewspaper

ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা উপজেলা পরিষদ, তিনটি পৌরসভা ও ২৫টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ।

রোববার (২৬ জুন) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রোববার বিকেল ৩টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভায় এ প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা হয়।

তালিকা দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

ট্যাগ:

রাজনীতি
‘সবার মুখে হাসি আর বিএনপির মুখে শ্রাবণের মেঘ’

banglanewspaper

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকে সবার মুখে আনন্দের হাসি। আর বিএনপির মুখে শ্রাবণের আকাশের মেঘ। এত ষড়যন্ত্র, এত কূটচাল তারপরও শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু করে ফেললেন। মির্জা ফখরুলের মন খারাপ, বুকে বড় ব্যথা, বড় বিষ জ্বালা। জ্বালায়-জ্বালায় মরছে তারা।

শনিবার (২৫ জুন) মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ীতে আওয়ামী লীগের জনসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এ পদ্মার পাড়ে কত ছেলে তার অসুস্থ মাকে নিয়ে অপেক্ষা করেছে। কিন্তু ফেরি আসেনি। পরে মায়ের মরদেহ নিয়ে বাড়ি ফিরেছে। পদ্মায় আটকা পড়ে কত ছেলে তারা বাবার জানাজায় যেতে পারেনি। অনেকে বলে, পদ্মা সেতুর জন্য এত টাকা, এত টোল, কিন্তু এ এলাকার মানুষ জানে পদ্মা সেতু তাদের কত প্রয়োজন। যারা বিষয়টি জানে না তারা পদ্মা সেতুর গুরুত্ব অনুধাবন করতে পারবে না।

‘আজ পদ্মা সেতুর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী তার নাম যুক্ত করেননি। কিন্তু যত দিন এখানে চন্দ্র ও সূর্য উদয় হবে, তত দিন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা আপনাকে স্মরণ করবে। বঙ্গবন্ধুর কথা স্মরণ করে, শেখ হাসিনার মুখের দিকে চেয়ে আপনারা পৈতৃক ফসলি জমি দিয়েছেন। পদ্মার পাড়ের মানুষের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, শত বাধা আসলেও প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতু বানাবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তিনি তার প্রতিশ্রুতি পূর্ণ করেছেন। সেজন্য আপনারা আজ এখানে একত্রিত হয়েছেন।

ট্যাগ: